#  সাকিবের দুর্দান্ত ব্যাটে জয় টাইগারদের #  লাখাইয়ে ৭০ টি মন্ডবে পূজার প্রস্তুতি #  ডাঃ মুখলিছুর রহমানকে ‘বাইয়াফি’ সংগঠনের ফুলেল শুভেচ্ছা #  হবিগঞ্জে বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টে সেমিফাইনালে বাহুবল #  হবিগঞ্জে ৫ দিনে আড়াই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ #  মাধবপুরে ১১ বস্তা সরকারী চাল জব্দ #  কার্তিকের সঙ্গী কিয়ারা #  যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি ব্যবহারে গ্যাসের ভূমিকা শীর্ষক কনফারেন্সে এমপি আবু জাহির #  চুনারুঘাটে মাদক বিরোধী সভা #  শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে বাংলাদেশ যুবাদের জয় #  শ্রীমঙ্গলে ফুটবল টুর্নামেন্টে কালেঞ্জি পুঞ্জি চ্যাম্পিয়ন #  হবিগঞ্জে আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস উদযাপন #  সিলেটে নিখোঁজ মাদরাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার #  বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেওয়া বন্ধ করল মালদ্বীপ #  মাধবপুরে মাদক বিরোধী সভা: চা শ্রমিকদের চিকিৎসাসেবা

হবিগঞ্জে ডিগ্রী ৩য় বর্ষের প্রবেশপত্র সরবরাহ হচ্ছে কম্পিউটার দোকানে!

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ বৃন্দাবন সরকারি কলেজের ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষার প্রবেশপত্র কলেজ থেকে না দিয়ে কলেজের নির্ধারিত কয়েকটি কম্পিউটার দোকান থেকে নিতে হচ্ছে।

এতে করে শিক্ষার্থীদেরকে অতিরিক্ত টাকা গুনতে হচ্ছে। যেখানে একটি প্রিন্ট নিতে ১০-১৫ টাকা খরচ হয় সেখানে শিক্ষার্থীদের দিতে হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা। এ নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

শিক্ষার্থীরা জানান, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ডিগ্রী শেষ বর্ষের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। পরীক্ষার প্রবেশপত্র কলেজ থেকে দেয়ার নিয়ম থাকলেও সেখানে প্রবেশপত্র মিলছে না। উল্টো কলেজ কর্তৃপক্ষ নোটিশ দিয়ে পরীক্ষার্থীদের জানিয়ে দেন, সিলেট শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইট অথবা কলেজের পাশের কম্পিউটার দোকান থেকে প্রবেশপত্র প্রিন্ট করিয়ে নিতে।

তবে কলেজ কর্তৃপক্ষের দাবি, কম্পিউটারের দোকান থেকে প্রবেশপত্র প্রিন্ট নিলে পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমবে।

এ ব্যাপারে কয়েকজন পরীক্ষার্থী ফেসবুকে এমন ঘটনার নিন্দা জানান।

ওই কলেজের ছাত্র তালুকদার সাইফুল নামের এক পরীক্ষার্থী তার ফেসবুক আইডিতে লিখেন ” আজকাল পরীক্ষার এডমিড কার্ড তুলতেও টাকা লাগে, আর এডমিড কার্ড পাওয়া যায় কলেজের সামনের ফটোকপির দোকানগুলোতে, ফ্যাক্ট: ডিগ্রী ৩য় বর্ষ পরীক্ষা।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানায়, ডিগ্রী শেষ বর্ষের পরীক্ষার প্রবেশপত্র দোকান থেকে নেওয়াটা অনেক রিস্ক। যদি কোন কারনে দোকানে কোন ক্ষতি হয়ে যায় আমরা সাধারন শিক্ষার্থীরা পড়ব বিপদে।

এ ব্যাপারে কম্পিউটার দোকানগুলোর মালিকরা জানান, কলেজের অফিস সহকারী আলী নেওয়াজ তাদের এ প্রবেশপত্র সরবরাহ করেন।

বিষয়টি স্বীকার করে অফিস সহকারী জানান, কলেজ কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তিনি এ প্রবেশপত্র ওই দোকানগুলোতে সরবরাহ করেন। কলেজের সামনে তিনটি কম্পিউটার দোকানে তা সরবরাহ করা হয়। তাছাড়া কোনো পরীক্ষার্থী তার কাছে গেলে তিনি প্রবেশপত্র প্রিন্ট করে দেন।

এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. এলিয়াছ হোসেন জানান, পরীক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য প্রবেশপত্র কম্পিউটারের দোকানগুলোতে সরবরাহ করা হয়েছে।