• Youtube
  • English Version
  • শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:১৮ পূর্বাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৫ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

শায়েস্তাগঞ্জে ব্যস্ত রয়েছেন লেপ-তোষকের কারিগররা!

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: সোমবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২৩

শাহ্ মোস্তফা কামাল, শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি:: হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে রকমারি তুলায় শীত নিবারণ বস্ত্র ও লেপ-তোষক তৈরির ধুম পড়েছে। নাতিদীর্ঘ বৃষ্টি বিরতি শেষে সারাদেশে শীতের আগমনী বার্তা শোনা যাচ্ছে। এর সাথে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় দৃশ্যমাণ হচ্ছে কনকনে শীতের আমেজ। যে কারনে, ঘণ কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ছে শায়েস্তাগঞ্জসহ এর আশপাশের এলাকার আকাশ। এমন বাস্তবতায়, লেপ-তোষকের কারিগররা প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন শীত নিবারণ উপকরণ তৈরী করার। এরই মধ্যে সংগ্রহ করা হচ্ছে বিভিন্ন জাতের তুলা এবং নিত্য নতুন ডিজাইনের লেপ-তোষকের কাপড়। বৈশ্বিক মুদ্রাস্ফীতির কারনে গত বছরগুলোর তুলনায় এ বছর লেপ-তোষক তৈরির কাপড় ও তুলার দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। যে কারনে লেপ-তোষক ক্রয়ে গ্রাহকদের গুনতে হবে অতিরিক্ত টাকা। দেশে সাধারণত শিমুল তুলা ও কারপাস তুলা দিয়ে শীত নিবারণ উপকরণ তৈরী করা হয়। হালে আরও কয়েক প্রকারের কৃত্রিম তুলা আবিষ্কার হয়েছে। গার্মেন্টস তুলা নামের কৃত্রিম তুলা মানসম্মত না হলেও দামে কম হওয়ায় সাধারন মানুষের কাছে এটি লোভনীয় বস্তু। উচ্চ দ্রব্যমূল্যের বাজারে প্রাকৃতিক তুলার চেয়ে কৃত্রিম তুলাতে তৈরী লেপ-তোষক ও বালিশের চাহিদা অনেক বেশী।

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি দোকান ঘুরে লেপ-তোষক তৈরীর কারিগরদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বর্তমান বাজারে শিমুল তুলা ৪ থেকে ৫শ টাকা কেজি, কার্পাশ তুলা ৪শ টাকা থেকে ৫শ টাকা কেজি। অপর দিকে গার্মেন্টস বা কৃত্রিম তুলা প্রকার ভেদে ৭০ টাকা থেকে শুরু করে ১৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তোষক ও জাজিম তৈরীর কাপড় ৫০ থেকে ৬৫ টাকা মিটার এবং লেপ তৈরীর কাপড় ৪০ থেকে ৫০ টাকা মিটারের মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। এ হিসাব অনুযায়ী ভালো মানের একটি লেপ ক্রয় করতে গুণতে হবে ২ হাজার থেকে আড়াই হাজার টাকা। গার্মেন্টস বা কৃত্রিম তুলায় তৈরী লেপ ক্রয়ে খরচ হবে ১হাজার থেকে দেড় হাজার টাকা।

আলাপকালে লেপ-তোষক তৈরীর কারিগর গণি মিয়া বলেন, শীতের শুরুতেই নতুন লেপ-তোষক তৈরীর কাজ চলছে পুরুদমে। কারন শীত বাড়তে থাকলে কাজের চাপ অত্যধিক বেড়ে যায়। তখন পুরাতন লেপ-তোষক মেরামতের হিড়িক পড়ে যাবে, তাই আগে থেকেই নতুন কাজ গুছিয়ে রাখছি। তবে এবার দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারনে তুলা, কাপড় সব কিছুরই দাম বেশি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ