• Youtube
  • English Version
  • সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:০১ পূর্বাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৫ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

চুনারুঘাটে আকল মিয়ার হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবী

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: সোমবার, ২ অক্টোবর, ২০২৩
শেখ মোঃ হারুনুর রশিদ, চুনারুঘাট থেকে: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি (ব্যকস) ও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত  উপজেলা শাখার সাবেক সভাপতি নিহত আলহাজ্ব আবুল হোসেন আকল মিয়া’র সকল হত্যাকারীদের অবিলম্বে ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন করা হয়েছে।
উপজেলা সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদের আয়োজনে সোমবার(২অক্টোবর) বাদ আছর পৌরশহরের মধ্যবাজারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
এতে সভাপতিত্ব করেন ব্যকস্-এর সভাপতি আব্দুস সালাম তালুকদার।ব্যবসায়ী নেতা সাজিদুল ইসলামের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদির লস্কর,ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব লুৎফুর রহমান সাবেক পৌর মেয়র নাজিম উদ্দিন সামছু,উপজেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ লিয়াকত হাসান,আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের উপজেলা সভাপতি মুসলিম খান, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সজল দাস, রাণীগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান রিপন,মিরাশী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হোসাইন আলী রাজন,জামেয়া ইসলামিয়া সামছুল উলূম মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা জহুর আলী, মাওলানা মোহাম্মদ আলী,ব্যকস্-এর বর্তমান সাধারণ সম্পাদক নিহত আকল মিয়ার বড় ছেলে অ্যাডভোকেট নাজমুল ইসলাম বকুল, উপজেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সাথী মোক্তাদির চৌধুরী কৃষাণ, হত্যা মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী শহীদুল ইসলাম, চুনারুঘাট প্রেসক্লাবের সভাপতি জামাল হোসেন লিটন, উপজেলা সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ হারুনুর রশিদ,পৌর যুবলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক আব্দুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক সোহেল আরমান,উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল মিয়াসহ সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দ,ব্যবসায়ীবৃন্দ,সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ,প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ-সহ হাজারো মানুষ।
বক্তারা তাদের বক্তব্যে আবুল হোসেন আকল মিয়া হত্যা মামলায় জড়িত সকলকে  আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ফাসির দাবী জানান।
নিহত আকল মিয়ার ছেলে নাজমুল ইসলাম বকুল বলেন,তাঁর বাবা সবসময় সালিশি বিচার-বৈঠিকসহ সামাজিক সকল সমস্যা সমাধানে অগ্রণী ভূমিকা রাখতেন।আজ তাঁর বাবা হত্যাকারীদের বিচারের জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হচ্ছে।তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে বলেন,প্রধামন্ত্রীর পরিবারের সবাইকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে হত্যা করেছিল খুনিরা।প্রধানমন্ত্রী বুঝেন বাবা হারানোর যন্ত্রণা কত কঠিন।নাজমুল ইসলাম বকুল প্রধানমন্ত্রীর কাছে বাবা হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাসির দাবী রেখে উপস্থিত  সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
প্রসঙ্গত,২০১৮ সালের ১লা মার্চ ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে  যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তরা ব্যবসায়ী নেতা আবুল হোসেন আকল মিয়ার ওপর হামলা করে।হামলায় তিনি গুরুতর আহত হন।আহতাবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ঘটনার পরদিন নিহতের ছেলে অ্যাডভোকেট নাজমুল ইসলাম বকুল রঞ্জন চন্দ্র পালকে প্রধান আসামি করে ৪জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করেন ।
একই বছরের ৩০ মার্চ মামলার আসামি জসিম উদ্দিন ওরফে শামীমকে ঢাকার তেজকুনিপাড়ার একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।গ্রেফতারের পরদিন তিনি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এর মধ্যে মামলার দুই নম্বর আসামী কারাগারে মারা যান।ঘটনার পর থেকেই রঞ্জল চন্দ্র পাল পলাতক ছিলেন।
দীর্ঘ ৫ বছর ২৬ দিন পলাতক থাকার পর গত ২৬ আগস্ট মঙ্গলবার হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল আলীমের আদালতে হাজির হয়ে মামলার প্রধান আসামী জামিনের আবেদন করেন। জামিন নামঞ্জুর করে আদালত রঞ্জন পালকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
এব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা(আইও) পিবিআই’র ইন্সপেক্টর শরীফ রেজাউল করিম বলেন,প্রধান আসামী রঞ্জন চন্দ্র পালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।মঙ্গলবার আদালতে রিমান্ড শুনানী হবে।রিমান্ড মঞ্জুর হলে হত্যার রহস্য উদঘাটন হতে পারে মামলার অপর দুই আসামী জসিম উদ্দিন ওরফে শামীম ও মোঃ সুমন মিয়া জামিনে রয়েছেন।নিহত আবুল হোসেন আকল মিয়া ও রবীন চন্দ্রপালের ছেলে রঞ্জল চন্দ্র পাল পৌরশহরের বাল্লারোড এলাকার বাসিন্দা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ