করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৫ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

হবিগঞ্জের দুই উপজেলায় চেয়ারম্যান হলেন যারা

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: বুধবার, ৫ জুন, ২০২৪

করাঙ্গীনিউজ: হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলায় ঘোড়া প্রতিক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন সৈয়দ লিয়কত হাসান, মাধবপুর উপজেলায় একই প্রতিক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন সৈয়দ শাহজাহান।

তারা উভয়ই বিএনপির নেতা।

আমাদের চুনারুঘাট প্রতিনিধি জানান, চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে চমক দেখিয়েছেন সৈয়দ লিয়াকত হাসান। তিনি ঘোড়া প্রতীকে ৫২ হাজার ৮২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিন্দ্বন্দ্বী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৫৬২ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদেও চা কন্যা খাইরুন আক্তার কলস প্রতীক বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৭৬ হাজার ২৮১।

ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে নির্বাচিত হয়েছেন মোঃ আব্দুল কাইয়ূম তরফদার। তিনি মাইক প্রতীকে ২৮ হাজার ৯৭৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ৪র্থ ধাপে গতকাল ৫ জুন চুনারুঘাটে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলে টানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

নির্বাচনে চেয়ারম্যন পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসান ঘোড়া প্রতীকে ৫২ হাজার ৮২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবু তাহের আনারস প্রতীকে পান ৩৫ হাজার ৫৬২, মোঃ রায়হান উদ্দিন মোটর সাইকেল প্রতীকে পান ৬ হাজার ৬৭২টি ভোট, মোঃ হাবিবুর রহমান জুয়েল কাপ পিরিচ প্রতীকে পান ১ হাজার ৭৪০ ভোট, লুৎফুর রহমান চৌধুরী কৈ মাছ প্রতীকে পান ৮ হাজার ৬২৩ ভোট। রায়হান, লূৎফুর ও জুয়েল এ ৩ জনই জামানত হারিয়েছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে মোঃ আব্দুল কাইয়ূম তরফদার মাইক প্রতীকে ২৮ হাজার ৯৭৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মাওলানা মুখলেছুর রহমান টিয়া পাখি প্রতীকে পান ১৭ হাজার ৯১৬ ভোট, মোঃ লূৎফুর রহমান চশমা প্রতীকে পান ১৭ হাজার ৮৭৬ ভোট, মোঃ শাহাজাহান তালা প্রতীকে পান ১২ হাজার ৮৮১ ভোট, উত্তম কুমার দাশ বই প্রতীকে পান ১৯ হাজার ৫১ ভোট, কবির মিয়া খন্দকার টিউবওয়েল পান ৩ হাজার ৮৫৫ ভোট, আজিজুল হক তরফদার উড়োজাহাজ ৩ হাজার ৭৩৮ ভোট পান।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যন পদে চা কন্যা খাইরুন আক্তার কলস প্রতীক নিয়ে ৭৬ হাজার ২৮১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কাজী সাফিয়া আক্তার হাঁস প্রতীকে ১২ হাজার ২১ ভোট, আবিদা খাতুন ফুটবল প্রতীকে পান ৮ হাজার ৮৭৩ ভোট, পারুল আক্তার পদ্মফুল প্রতীকে পান ৩ হাজার ১৩৮ ভোট, ইয়াসিন আক্তার মুক্তা বৈদ্যুতিক পাকা প্রতীকে পান ৪ হাজার ১৬৮ ভোট। মুক্তা আক্তার, আবিদা খাতুন ও পারুল আক্তার ৩ জনই জামানাত হারিয়েছেন। মোট ভোটার ১ লাখ ৪৯১ ভোট, বাতিল ভোট ৪৩৫৯, প্রদত্ত ভোট ১ লাখ ৮৮৫০ ভোট, শতকরা হার ৪৩.৭৩%।

১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে মাধবপুর উপজেলা গঠিত। এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৭৩ হাজার ১৯২ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৯৩টি।

আমাদের মাধবপুর প্রতিনিধি জানান, মাধবপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হয়েছে।

বুধবার (৫ জুন) সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলে টানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনে চেয়ারম্যন পদে সৈয়দ মোঃ শাহজাহান ঘোড়া প্রতীকে ৬২ হাজার ২৫২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিন্দ্বন্দ্বি জাকির হোসেন চৌধুরী অসিম আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩৮ হাজার ৫২ ভোট, সৈয়দ শাহ হাবিব উল্লা শালিক পাখি প্রতীকে ২ হাজার ২৮৪ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে এরশাদ আলী বই প্রতীকে ২৮ হাজার ৬৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী। তার নিকটতম প্রতিন্দ্বন্দ্বি আব্দুল আজিজ চশমা প্রতীকে পান ২৭ হাজার ৯৬৮ ভোট, সৈয়দ শামসুল আরেফিন তালা মার্কা প্রতীকে পেয়েছেন ১৮ হাজার ৮৬০ ভোট, ধীরানাথ মাইক প্রতীকে পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩১৩ ভোট, আসাদুজ্জামান টিয়া পাখি প্রতীকে ৩ হাজার ৫৮০ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন, মো. সুলেহমান টিউবওয়েল প্রতীকে ২ হাজার ৮৪৯ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যন পদে আছমা আক্তার সেলাই মেশিন প্রতীকে ৪৯ হাজার ৯৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিন্দ্বন্দ্বি ফাতেমাতুজ জোহরা রিনা পদ্মফুল প্রতীকে পান ১৮ হাজার ২৩০ ভোট, সেলিনা আক্তার কলস প্রতীকে পান ১৮ হাজার ২৮ ভোট, জাহানারা বেগম ফুটবল প্রতীকে পান ১৪ হাজার ৬৬৭ ভোট। মোট ভোটার ১ লাখ ৮৫৫ জন।

বাতিল ভোট ৪১৯৭, প্রদত্ত ভোট ১ লাখ ৫০৫২ ভোট, শতকরা হার ৩৮.৫১%। ১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে মাধবপুর উপজেলা গঠিত। এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৭৩ হাজার ১৯২ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৯৩টি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ