• Youtube
  • English Version
  • শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৪৮ অপরাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৫ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

চুনারুঘাটে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন,মূলহোতাসহ গ্রেফতার ৩

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

শেখ মোঃ হারুনুর রশিদ: চুনারুঘাটে ক্লু-লেস হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ।

 

গত বৃহস্পতিবার(৮ফেব্রুয়ারী)সকালে চুনারুঘাটের বালিয়ারী গ্রামের আতাউর রহমান নামের এক টমটম চালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।এ ক্লু-লেস হত্যাকান্ডের রহস্য ১২ ঘন্টার মধ্যে উদঘাটন করা হয়েছে।

 

এরই সাথে চুরি হওয়া টমটম,হত্যায় ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার এবং হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী হাবিবুর রহমান রামিম-সহ ৩জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার(৯ ফেব্রুয়ারী)সন্ধ্যায় হত্যাকান্ডের বিষয়ে চুনারুঘাট থানায় প্রেস ব্রিফিং করে পুলিশ।এ ব্যপারে বক্তব্য রাখেন মাধবপুর সার্কেল সহকারী পুলিশ সুপার নির্মলেন্দু চক্রবর্তী ও ওসি হিল্লোল রায়।তারা বলেন,ওই দিন হত্যার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক চুনারুঘাট থানার ওসি হিল্লোল রায়,পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত)প্রজিত কুমার দাস-সহ পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্লু-লেস হত্যার তদন্ত শুরু করেন।

 

ওই দিন এসআই ওমর ফারুক নিহত ব্যক্তির লাশের সুরুতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

পুলিশ জানায়,নিহত আতাউরের গলায়,পায়ের গোড়ালীতে,মাথায় ও পেটে অসংখ্য কাটা জখম দৃশ্যমান ছিল।থানা পুলিশ ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন(পিবিআই)-এর একাধিক টিম যৌথ অভিযান পরিচালনা করে হত্যাকান্ডের প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করেন।প্রধান আসামী বালিয়ারী গ্রামের মৃত আজিজুর রহমান মালাইয়ের ছেলে মোঃ হাবিবুর রহমান রামিম(২১)।

প্রধান আসামীর স্বীকারোক্তি ও দেখানো মতে টমটম (ইজিবাইক) বিক্রির নগদ ৩০হাজার টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।পরে ঘটনাস্থলের পাশে ওই গ্রামের আফরাজ আফগান-এর পুকুর থেকে হত্যায় ব্যবহৃত ২টি ছুরি ও ১টি ‘দা’ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে পিবিআই ইন্সপেক্টর আব্দুল মালেক বলেন,হত্যার পর চুরি হওয়া টমটম শায়েস্তাগঞ্জের চন্ডিপুর গ্রামের মতি মিয়ার ছেলে সিজিল মিয়ার টমটম গ্যারেজ থেকে উদ্ধার করে পিবিআই।এসময় সিজিল মিয়া ও টমটম গ্যারেজে রাখায় সম্পৃক্ত মড়রা গ্রামের শফিক মিয়ার ছেলে সজিব মিয়াকে আটক করে চুনারুঘাট থানায় হস্থান্তর করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত,বৃহস্পতিবার(৮ফেব্রুয়ারী)চুনারুঘাট উপজেলার ৭নং উবাহাটা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বালিয়ারী গ্রামের আতাউর রহমান(৪৮)নামের এক টমটম(ইজিবাইক) চালককে দুই হাত-পায়ের রগ ও গলা কেটে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।নিহত আতাউর রহমান মৃত আব্দুল খালেকের ২য় পুত্র।নিহত আতাউরের বিমাতা আবিদা খাতুন(৬২)বলেন,আতাউর দিন শেষে প্রতি রাতের দুই/আড়াইটার দিকে পাশের বাড়ির চেরাগ আলীর ছেলে ফরিদ মিয়াকে(৪২)শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রীজ থেকে নিয়ে এসে তার বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে আসে।
ফরিদ মিয়া শায়েস্তাগঞ্জ বাস কাউন্টারে চাকুরী করেন।গত বুধবার(৭ফেব্রুয়ারী) দিবাগত রাত ১০টার দিকে বাড়ি থেকে টমটম নিয়ে বের হয়ে যায় আতাউর।নিহত আতাউরের ‘মা’ আবিদা খাতুনের ভাষ্যমতে,পাশের বাড়ির ফরিদ মিয়া বলেছে ঘটনার রাত প্রায় আড়াইটার দিকে আতাউর টমটম দিয়ে ফরিদ মিয়াকে তার বাড়িতে পৌছে দিয়ে আসে।

গত বৃহস্পতিবার ভোর ৬টার দিকে উবাহাটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বালিয়ারী গ্রামের বাসিন্দা এজাজ ঠাকুর-এর বাড়ির পশ্চিমে একটি খালের উপর পরে থাকা লাশটি দেখতে পান স্থানীয়রা।স্থানীয়দের ধারণা পাশের বাড়ির ফরিদ মিয়াকে তার বাড়ি পৌছে দিয়ে নিজ বাড়ি ফেরার পথেই ঘাতকরা নির্মমভাবে হত্যাকান্ডটি ঘটিয়েছে।

এব্যপারে উবাহাটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এজাজ ঠাকুর বলেন,নিহত আতাউর আমার গ্রামের ছেলে।গত বুধবার রাতে কে বা কারা তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করে আমার বাড়ির পশ্চিমে ফেলে রেখে তার টমটম গাড়িটিও নিয়ে যায়।পূর্ব শত্রুতার জেরে এমন ঘটনা ঘটতে পারে বলেও জানান তিনি।নিহত আতাউর ৪সন্তানের জনক।তার মেয়ে মোছাঃ হেপি আক্তার(১৮),তানিশা আক্তার(৬) ও ছেলে মোঃ আরাফাত মিয়া(৮),মোঃ রিফাত মিয়া(৩)।

নিহতের সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী মোছাঃ পপি আক্তার(৪২) স্বামীর এমন মর্মান্তিক মৃত্যকে কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না।তিনি ও তাঁর ছেলে-মেয়েরা বিলাপ করছেন এবং বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন।তিনি প্রশাসনসহ দেশবাসীর কাছে স্বামী হত্যাকারীদের আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসির দাবী করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ