• Youtube
  • English Version
  • শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:৪৩ পূর্বাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৫ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের বাংলোতে ডাকাতি,গ্রেফতার ৪

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২৩

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে সাতগাঁও চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক আব্দুল মতিনের এর বাংলোতে ডাকাতির ঘটনার

 

২৪ ঘণ্টার মধ্যে ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সেই সাথে ডাকাতদের কাছ থেকে লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

 

গত ২৩ নভেম্বর দিনব্যাপী কুমিল্লা জেলার কোতায়ালী থানা এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর এলাকায় শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদারের দিকনির্দেশনায় শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম এর নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা অভিযান পরিচালনা করে- সবুজ মিয়া (৪৭), বশির আহমদ (৩৫), সফিক উদ্দিন (৪০) এবং মিঠুন দাস (২৫) নামে ৪ জন ডাকাতকে গ্রেফতার করে।

 

এ সময় ডাকাতদের কাছ থেকে বাগানের বাংলো থেকে লুট হওয়া স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা এবং অন্যান্য মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।

 

শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় মৌলভীবাজারে পুলিশ সুপারের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মো. মনজুর রহমান পিপিএম বার।

 

পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের আরো জানান, ডাকাতির সংবাদ পাওয়া মাত্রই শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জের নেতৃত্বে থানা পুলিশ মাঠে কাজ শুরু করে। ডাকাতির ঘটনার রহস্য উদঘাটন, আসামিদের গ্রেফতার এবং লুষ্ঠিত মালামাল উদ্ধারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম এবং থানার একটি চৌকস দল অভিযান শুরু করে।

 

গোপন সোর্স এবং তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতায় কুমিল্লা জেলার কোতয়ালী থানার অন্তর্গত ২নং দুর্গাপুর ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের জনৈক হাজী মোস্তফার মালিকানাধীন বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে উক্ত ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত
থাকার কথা স্বীকার করে বলেও জানান পুলিশ সুপার মনজুর রহমান।

 

পুলিশ সুপার লিখিত বক্তব্য আরো জানান গ্রেফতারকৃত আসামীরা আন্তঃ জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক ডাকাতির মামলা রয়েছে। এই ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া ৪জন ডাকাত ছাড়া আরো কয়েকজন ডাকাতের তথ্য পাওয়া গেছে। তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম-ঠিকানা গোপন রাখা হয়েছে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

 

উল্লেখ্য, গত ২২ নভেম্বর রাত অনুমান দেড়টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত মুখোশ পরে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে একটি ডাকাতদল সাতগাঁও চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক আব্দুল মতিনের বাংলোতে প্রবেশ করেন। আব্দুল মতিন এবং তার স্ত্রী ও অন্য সদস্যদরে হাত-পা বেঁধে ৫ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ৮০ হাজার টাকা, মোবাইল ফোন এবং অন্যান্য মালামাল লুট করে ডাকাতরা। এ ঘটনায় শ্রীমঙ্গল থানায় একটি ডাকাতি মামলা রুজু হয়।

 

প্রেস ব্রিফিং-এ উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) সুদর্শন কুমার রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মহসিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ক্রাইম এন্ড অপস) মোহাম্মদ সারোআর আলম, সহকারী পুলিশ সুপার(শ্রীমঙ্গল সার্কেল) আনিসুর রহমান, শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, মামলার তদন্তকারী অফিসার শ্রীমঙ্গল থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত
মো. আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ