• Youtube
  • English Version
  • রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০০ অপরাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৫ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

শ্রীমঙ্গলে রিডিং ও রাইটিং হসপিটাল কার্যক্রম সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে  মতবিনিময়

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২৩
শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:পিছিয়ে পড়া  দূর্বল শিক্ষার্থীদের সবল করতে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে শতাধিক স্কুলে চালু হওয়া রিডিং ও রাইটিং হসপিটাল কার্যক্রম সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে  করনীয় বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে শ্রীমঙ্গল জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো: আব্দুস শহীদ ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যদেন উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা জ্যোতিষ রঞ্জন দাশ।
এ সময় আরো বক্তব্যদেন উপজেলা চেয়ারম্যান ভানুলাল রায়, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অর্ধেন্দু কুমার দেব, বিএমএ শ্রীমঙ্গল এর সভাপতি ডা: হরিপদ রায়, শ্রীমঙ্গল থানা অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি জহর তরফদার, সাধারণ সম্পাদক কল্যাণ দেব, উপপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিতালী দত্ত ও শ্রীমঙ্গল মাহমুদ আলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাংবাদিক বিকুল চক্রবর্তী প্রমূখ।
এ অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, শ্রীমঙ্গলে শিক্ষার হার বাড়াতে চা বাগান এলাকায় ৩৪টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। যার ফলে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় এখন ঝড়েপড়া রোধ হয়েছে। একই সাথে করনার সময় লেখা পড়া না করায় বর্তমান তৃতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থীর একটা অংশ রিডিং ও রাইটিংএ অনেক দূর্বল। এই শিক্ষার্থীদের জন্য স্থাপিত হয় রিডিং ও রাইটিং হসপিটাল। যেখানে খেলার ছলে শিখানো হয় রিডিং পড়া। যা এখন অনুকরনীয় একটি কৌশল। বক্তারা বলেন, শুধু শ্রীমঙ্গল নয় সারা দেশের দূর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য দেশের সর্বত্র এই কৌশল চালু করা প্রয়োজন।
শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুন বলেন, “শ্রীমঙ্গল উপজেলায় যোগদানের পর তিনি নিয়মিত বিভিন্ন স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে শিক্ষার্থীদের এ দূর্বলতা উপলব্দি করেন। এ পেক্ষিতে এর সমাধানে শিক্ষক, শিক্ষা কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করেন।
শ্রীমঙ্গল সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম ভূইয়া বিশেষ এই কৌশলটির প্রস্তাবনা দেন। পরবর্তীতে এই প্রস্তাবনাকে আরো যোগপোগী করে শতাধিক বিদ্যালয়ে কার্যক্রম শুরু করি। যার ভালো ফলাফলও পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যে অনেক দূর্বল শিক্ষার্থী  এখন রিডিং পড়তে পাড়ে।”
এ সময় বিশেষ এই কৌশল আবিস্কারের জন্য শ্রীমঙ্গল প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের পক্ষ থেকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুন ও শ্রীমঙ্গল সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম ভূইয়াকে সম্মাননা দেয়া হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ