1. nafiz.hridoy285@gmail.com : Hridoy Fx : Hridoy Fx
  2. miahraju135@gmail.com : MD Raju : MD Raju
  3. koranginews24@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক
কৃষক হত্যায় শ্যালক-দুলাভাইয়ের যাবজ্জীবন - করাঙ্গীনিউজ
  • Youtube
  • English Version
  • রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৪ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

কৃষক হত্যায় শ্যালক-দুলাভাইয়ের যাবজ্জীবন

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: বুধবার, ৩১ অক্টোবর, ২০১৮

নিজস্ব প্রতিনিধি, সুনামগঞ্জঃ সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার জাহিদপুর গ্রামের কৃষক রমিজ আলী হত্যা মামলায় শ্যালক-দুলাভাইকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে উভয়কে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ২ মাস করে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- জেলার ছাতক উপজেলার জহিরপুর গ্রামের মিজাজ আলীর ছেলে খানন মিয়া ও তার বোন জামাই আব্দুল আজিদ। আব্দুল আজিদ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার সাদীপুর গ্রামের ইমান আলীর ছেলে ও ছাতক উপজেলার জহিরপুর গ্রামের মিজাজ আলীর মেয়ে জামাতা।

বুধবার (৩১ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টায় সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০ সালের ১৭ মে বিকেলে ছাতক উপজেলার জহিরপুর গ্রামের মিজাজ আলীর ছেলে খানন মিয়া ও একই গ্রামের প্রতিবেশী রমিজ আলীর চেলে লিলু মিয়ার মধ্যে শিশুদের ঝগড়া নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়।

এ সময় রমিজ আলী খাননকে জিজ্ঞেস করেন তার ছেলে লিলু মিয়াকে কেন গালাগাল করছেন। এর জের ধরে মিজাজ আলীর মেয়ের জামাতা(ঘরজামাই) আব্দুল আজিজ রমিজ আলীকে ধরে ফেলেন। এ সুযোগে খানন মিয়া লাঠি দিয়ে রমিজ আলীকে উপর্যুপরি মারধর করতে থাকে।
এক পর্যায়ে রমিজ আলী মাটিতে লুটিয়ে পড়লে প্রতিবেশীরা সঙ্গে সঙ্গে আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

১৯ মে নিহত রমিজ আলীর ছেলে লিলু মিয়া বাদী হয়ে ছাতক থানায় খানন মিয়া, আব্দুল আজিদ, খানন মিয়ার মা কমলা বিবি ও বোন কনা বিবিকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত আসামি খানন মিয়া ও তার বোনজামাই আব্দুল আজিদকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও উভয়কে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো ২ মাস করে সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট সোহেল আহমদ ছইল মিয়া এবং আসামি পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট রবিউল লেইস রোকেস।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
x