1. nafiz.hridoy285@gmail.com : Hridoy Fx : Hridoy Fx
  2. miahraju135@gmail.com : MD Raju : MD Raju
  3. koranginews24@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক
টানা দ্বিতীয় জয় সিলেটের - করাঙ্গীনিউজ
  • Youtube
  • English Version
  • রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৪ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

টানা দ্বিতীয় জয় সিলেটের

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: শনিবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২৩

স্পোর্টস ডেস্ক:
বিপিএলে ফরচুন বরিশাল বিপক্ষে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছে সিলেট স্ট্রাইকার্স। বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে জাকির হোসেনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৬ বল হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় মাশরাফি বাহিনী।

শনিবার মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে ১৯৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছে সিলেট।

বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই কলিন অ্যাকারম্যান (১) রানআউট হলে ধাক্কা খায় সিলেট।
তবে দ্বিতীয় উইকেটে নাজমুল হোসেন শান্ত আর তৌহিদ হৃদয় ৬৭ বলে ১০১ রানের জুটি গড়ে দলকে লড়াইয়ে ফেরান।

৪০ বলে ৫ চার আর ১ ছক্কায় ৪৮ রান করে রানআউটের ফাঁদে পড়েন শান্ত। হাফসেঞ্চুরিয়ান তৌহিদ হৃদয় ৩৪ বলে ৭ চার আর ১ ছক্কায় করেন ৫৪।

এরপর ১৮ বলে ৪৩ রানের বিধ্বংসী এক ইনিংস খেলেন কদিন আগেই জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়া জাকির হাসান।
যে ইনিংসে ৪টি চারের সঙ্গে ৩টি ছক্কা হাঁকান বাঁহাতি এই ব্যাটার।

শেষটা করেছেন মুশফিকুর রহিম আর থিসারা পেরেরা। মুশফিক ১১ বলে ২৩ আর ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ শেষ করা পেরেরা ৯ বলে ২০ রানে অপরাজিত থেকে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভার থেকেই সিলেট স্ট্রাইকার্সের বোলারদের ওপর চড়াও হন বরিশালের এনামুল হক বিজয়।
তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন চতুরাঙ্গা ডি সিলভা। দুজনে মিলে পাওয়ারপ্লেতে যোগ করেন ৫৪ রান। পাওয়ারপ্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৪ রান করা বরিশাল প্রথম উইকেট হারায় দলীয় ৬৭ রানে। ২১ বলে ২৯ রান করে মাশরাফির বলে ক্যাচ হয়ে ফেরেন বিজয়।

বিজয়ের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি শ্রীলঙ্কান চতুরাঙ্গা ডি সিলভাও।
৩৬ রান করে তিনি ফেরেন ইমাদ ওয়াসিমের শিকার হয়ে। চতুরাঙ্গার বিদায়ের পর উইকেটে আসেন সাকিব। এক প্রান্ত আগলে রেখে শুরু করেন ঝড়ো ব্যাটিং। ২৭ বলে তুলে নেন ফিফটি।

ফিফটির পরেও থামেনি তার ব্যাট। চলছিল চার-ছক্কার ফুলঝুড়ি। অবশেষে সাকিবকে থামান এসে মাশরাফি। শেষ ওভারে সাকিবকে মোহাম্মদ আমিরের ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে ফেরান ম্যাশ। ৩২ বলে ৪ ছোঁয় ও ৭ চারে ৬৭ রান করেন সাকিব। শেষদিকে করিম জানাতের ক্যামিও ইনিংসে ১৯৪ রানে থামে বরিশালের ইনিংস।

সিলেটের পক্ষে ৪ ওভারে ৪৮ রান খরচ করে ৩টি উইকেট লাভ করেন মাশরাফি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
x