Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  হবিগঞ্জে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু #  বানিয়াচংয়ে প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ #  মাধবপুরে সায়হাম গ্রুপের সৌজন্যে মার্কস বিতরণ #  করোনা ভাইরাসের মাঝেও ভিক্ষা করছেন হবিগঞ্জের মীর চান #  মাধবপুরে করোনা ভাইরাস রোধে সেনাবাহিনীর প্রচারাভিযান #  ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনও করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি #  শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু হলো সংসদ টেলিভিশনে #  মাধবপুরে পুলিশের বাড়িতে ডাকাতি #  নবীগঞ্জে বাড়ি বাড়ি খাদ্য সামগ্রী বিতরণ #  আজমিরীগঞ্জে দু’পক্ষের সংঘর্ষে টেটাবিদ্ধসহ আহত ১০ #  শায়েস্তাগঞ্জে ইয়াবাসহ আটক ৩ #  চুনারুঘাটে করোনার রোগী বহনে প্রস্তুত ব্যারিস্টার সুমনের গাড়ি #  শ্রীমঙ্গলে হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিল প্রশাসন #  বাহুবলে নবজাগরণের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ #  চুনারুঘাটে কর্মচঞ্চল চা শ্রমিকরা: নেই করোনা সতর্কতা

করোনাভাইরাস সন্দেহ:ভারতীয় নাগরিককে হবিগঞ্জে আসতে বাধা

নিজস্ব প্রতিনিধি: করোনাভাইরাস বাহী সন্দেহে সুভাষ সরকার (৩০) নামের এক ভারতীয় নাগরিককে ফেরত পাঠিয়েছে আখাউড়া স্থলবন্দর চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন হেলথ ডেস্ক কর্তৃপক্ষ।

তিনি সিলেটের হবিগঞ্জে আসার উদ্দেশে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে চাইছিলেন বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১০ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে ভারতের আগরতলা আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট হয়ে বাংলাদেশের আখাউড়া ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট আসেন সুভাষ।

এ সময় নো ম্যান্স ল্যান্ডে ওই ব্যক্তিকে পরীক্ষা করেন ইমিগ্রেশনে অস্থায়ী হেলথ ডেস্কের স্বাস্থ্যকর্মীরা। তার গায়ে অতিরিক্ত তাপমাত্রা থাকায় এবং তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তাকে মাস্ক পরিয়ে দেয়া হয়।

সুভাষ সরকার ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলার মধ্য ভুবন বন এলাকার শরৎ সরকারের ছেলে। তার পাসপোর্ট নাম্বার (T- 8461995)। সিলেটের হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার রাধানগর গ্রামে নিজের ফুফুর বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল তার।

আখাউড়া ইমিগ্রেশনে অস্থায়ী হেলথ ডেস্কের দায়িত্বে থাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরিদর্শক মো. ফজলুল হক সরকার জানান, ওই ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশে প্রবেশের পর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে তার গায়ে প্রায় ১০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা থাকায় এবং তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ায় করোনাভাইরাসবাহী সন্দেহ করা হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহ আলমকে জানানো হয়। তার নির্দেশে অসুস্থ সুভাষ সরকারকে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে নো ম্যান্স ল্যান্ড থেকে ভারতে ফেরত পাঠানো হয়।

আখাউড়া চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ইনচার্জ আবদুল হামিদ জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কেউ যাতে দেশে প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য ইমিগ্রেশনে অস্থায়ী হেলথ ডেস্ক কর্মীরা সজাগ দৃষ্টি রেখেছেন। ইমিগ্রেশন পুলিশের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্যকর্মীদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হচ্ছে।

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত চীনের কোনো নাগরিক এ সীমান্ত দিয়ে যাতায়াত করেননি। তবে ভারতীয় নাগরিক সুভাষ সরকারের অতিরিক্ত জ্বর ও অসুস্থ হওয়ার তাকে সন্দেহ করে নিজ দেশে ফেরত পাঠিয়েছে। ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ সর্বদা সতর্ক রয়েছে।

করোনাভাইরাস নিয়ে বাড়তি সতর্কতা হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল ও ৮টি উপজেলা হাসপাতালে আইসোলেশন বেড স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিটি হাসপাতালে মোট দুইটি করে ১৬টি ও জেলা সদর হাসপাতালে পাঁচটি বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে।