Daily Archives: September 9, 2020

চুনারুঘাটে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় রোকসানাকে

করাঙ্গীনিউজ: র্দীঘ ৭ মাস পর হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের রোকসানা আক্তার মিষ্টি
(২২) হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। পরকীয়ার জের ধরে আসামিরা মিষ্টিকে ধর্ষণের পর গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করে।

হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামি আফসার মিয়া (২৮) ও তার স্ত্রী রিপা বেগম (২৪) বুধবার বিকেলে হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চুনারুঘাট থানার ওসি (তদন্ত) চম্পক দাম বলেন,৬ ফেব্রয়ারী রাতে চুনারুঘাটের রানীগাঁও যুগীর টিলা নামক স্থানে অজ্ঞাত এক যুবতীর লাশ পাওয়া যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে চুনারুঘাট থানায় নিয়ে আসে।

পরে যুবতীর নাম ঠিকানা নিশ্চিত না হওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরোদ্ধে চুনারুঘাট থানায় মামলা দায়ের করে।

ঘটনার ৭ মাস পর আসামী আফসারের সাথে ঢাকার পাওনাদার ফারুকেরমারামারি ঘটনার সূত্র ধরে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি সহায়তায় আসামি চুনারুঘাট উপজেলার পাচারগাঁও গ্রামের আবদুল খালেকের পুত্র
আফসার মিয়া (২৮) ও তার স্ত্রী রিপা বেগম (২৪) কে চুনারুঘাট পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যলয়ে এক প্রেস ব্রিফিংএ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্যা সাংবাদিকদের
বলেন,রোকসানা আক্তার মিষ্টি মৌলভীবাজারে একটি কোম্পানীর
বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করত। মিষ্টি নোয়াখালী জেলার চাটখিল উপজেলার ষোল্লা গ্রামের খুর্শেদ আলী মজুমদারের কন্যা।

মৌলভীবারে রিফার সাথে মিষ্টির পরিচয় হয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে মিষ্টি রিপা ও তার স্বামী আফসারের সাথে একই বাসায় ভাড়া থাকত। এ সুবাদে মিষ্টির সাথে আফসারের পরকিয়া প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। এ নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে জগড়া বিবাধ লেগে থাকত।

এ পর্যায়ে রিফা তার বাবার বড়ী চলে যায়। পরে আফসার মিষ্টিকে দোনিয়া থেকে সড়িয়ে ফেলবে বলে প্রতিশ্রুতি দিলে সে বাড়ী ফিরে আসে। এবং আফসারের গ্রামের বাড়ী চুনারুঘাটের পাচারগাঁও গ্রামে মিষ্টিকে নিয়ে ৬ ফেব্রয়ারী ২০২০ রাতে বেড়াতে আসে।

রাতে খাওয়া দাওয়া শেষে তাকে আসামিরা কৌশলে রানীগাঁও ও চাটপাড়া গ্রামের মাঝামাঝি হাওড়ের যুগীর আসন টিলায় নিয়ে আফসার মিষ্টিকে ধর্ষন করে এবং তার ওড়না দিয়ে রিফা ও তার স্বামী মিষ্টিকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করে। পরে মৃত্যু নিশ্চিত হয়ে তারা মিষ্টিকে টিলার নিচে ফেলে চলে যায়।

কমলগঞ্জে ভাতার বই বিতরন

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুরে বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতার বই বিতরন করা হয়েছে।

৯ সেপ্টেম্বর (বুধবার) বেলা ২ টায় আদমপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এসব বই বিতরন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান. ইন্সপেক্টর তদন্ত সুধীন চন্দ্র দাস, আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন, সাংবাদিক শাব্বির এলাহী, সাংবাদিক শাহীন আহমেদ, এস আই শহিদুর রহমান. এ এস আই সাইদুজ্জামান।

অনুষ্ঠানে ৬৭ টি বয়স্ক, ৪৩ টি বিধবা ও ৭৬ টি প্রতিবন্ধীসহ মোট ১৮৬জনকে ভাতার বই বিতরন করা হয়।

কমলগঞ্জে বিট পুলিশিং এর উঠান বৈঠক

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুরে সম্প্রসারিত বিট পুলিশিং কার্যক্রম নিয়ে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানা পুলিশের আয়োজনে বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) আদমপুর ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান।

আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন এর সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক শাব্বির এলাহীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিস বেগম, কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান. ইন্সপেক্টর তদন্ত সুধীন চন্দ্র দাস, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহীন আহমেদ, এস আই শহিদুর রহমান. এএসআই সাইদুজ্জামান।

ট্রলারডুবিতে নিহতদের মধ্যে সুনামগঞ্জের ৯ জন

নিজস্ব প্রতিনিধি: নেত্রকোনা জেলার কলমাকান্দা উপজেলায় যাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনায় সুনামগঞ্জের ৯ জন নিহত হয়েছেন।

আজ বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টা পর্যন্ত নেত্রকোনার একজনসহ সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার ২ জন ও মধ্যনগর থানার ৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ৫ জন শিশু, ৩ জন নারী ও ২ জন পুরুষের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে আছেন দুই পরিবারের ৬ জন। আর জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে ৫ জনকে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জের মধ্যনগর থেকে নেত্রকোনা সদরের ঠাকুরাকোণা ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার পর বুধবার সকাল ১১টার দিকে কলমাকান্দা উপজেলার বড়কাপন ইউনিয়নের রাজনগর এলাকার গুমাই নদীতে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি বালুবাহী ট্রলারের ধাক্কায় ডুবে যায় ওই ট্রলার। পরে স্থানীয়রা ১০ জনের লাশ উদ্ধার করেন।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন- ধর্মপাশা উপজেলার ইনাতনগর গ্রামের সাহেব আলীর স্ত্রী মজিদা আক্তার (৫০), মধ্যনগর এলাকার কামারউড়া গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে অনিক (৭), একই গ্রামের হাবিকুলের স্ত্রী লাকি আক্তার (৩০), তার দুই সন্তান টুম্পা আক্তার (৫) ও জাহিদ হোসেন (৩), ধর্মপাশা উপজেলার জামালপুর গ্রামের জোবাইরের ছেলে মোজাহিদ (৪), একই গ্রামের আব্দুল করিমের স্ত্রী সুলতানা আক্তার (৪৫), ইনাতনগর গ্রামের ওয়াহাব আলীর স্ত্রী লুৎফুন্নাহার ও তার আড়াই বছরের ছেলে ইয়াসিন। একই পরিবারের মনিরা (৫) নামের আরও এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে। এছাড়া মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে নেত্রকোনা সদরের মেদনী গ্রামের আবুচানের স্ত্রী হামিদা খাতুনের (৪৫)।

এছাড়া নিখোঁজ রয়েছেন, ইনাতনগরের আব্দুল হান্নানের ছেলে রতন মিয়া (৩৫), একই এলাকার ফাতেমা আক্তার (৩৫) ও মোফাজ্জল।

ইতোমধ্যে সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ ধর্মপাশা ও মধ্যনগর উপজেলার উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন বলে জানা গেছে। তিনি নিহতদের স্বজনদের সাথে দেখা করার কথা রয়েছে। এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় ধর্মপাশা ও মধ্যনগরের নিহতদের পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

মৌলভীবাজারে অটোরিকশা শ্রমিকদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার: অটোরিকশায় গ্রিল স্থাপনের নির্দেশনা, অনটেস্ট গাড়ি চলাচলে স্টিকার ব্যবসা ও রং পার্কিং এর নামে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন মৌলভীবাজারের অটোরিকশা শ্রমিকরা।

আজ বুধবার (৯ সেপ্টেম্বর) দূপুরে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সম্মুখে এই মানববন্ধনের আয়োজন করে জেলা অটোটেম্পু, অটোরিকশা, মিশুক ও সিএনজি সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন।

রাস্তার পাশে সিএনজিচালিত অটোরিকশা রেখে শত শত চালক মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শ্রমিক নেতা পাবেল আহমেদ, আজিজুল হক সেলিমসহ জেলার সাধারণ অটোরিকশা শ্রমিকগণ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দরজা লাগানো, অনটেস্ট গাড়িতে টিকার সিস্টেম বাতিল ও যত্রতত্র পার্কিং করার নামে জরিমানা প্রথা বাতিল করতে হবে। নতুবা তারা কঠোর আন্দোলনের ডাক দেবেন।

মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

কচুয়াদী শ্মশানে অনুদান তুলে দিলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী শামীম

বাহুবল (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: বাহুবলের মিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান মেম্বার শামীম আহমদ ইউনিয়নের কচুয়াদি শ্মশান কালি মন্দিরে হবিগঞ্জ জেলা পরিষদ থেকে আনা ৫০ হাজার টাকার চেক প্রদান করেছেন।

বুধবার সকালে মন্দিরের সভাপতি প্রাণেশ ভট্রাচার্য্যের হাতে চেকটি তুলে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিষ্ণু দেব বিশাল, গবিন্দ ভট্রাচার্য্য, উত্তম সূত্রধর প্রমূখ।

চেয়ারম্যান প্রার্থী শামীম, মেম্বার নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই নিজের ওয়ার্ড ছাড়াও ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে সামাজিক উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। রাস্তাঘাট , কালঘার্ট,বিয়ে শাদী সব কাজই তিনি দায়িত্ব নিয়ে রাত দিন পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

মন্দিরের সিনিয়র সহ সভাপতি মাষ্টার উজ্বল ভট্রাচার্য্য জানালেন, মেম্বার শামীম আমাদের ওয়ার্ডের না হয়েও তিনি আমাদের মন্দিরে ৫০ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছেন,সেটা আমাদের কাছে অকল্পনীয় ছিল।

চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান মেম্বার শামীম আহমদ বলেন, মেম্বার নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই সামাজিক উন্নয়নে মনোনিবেশ করি, নিজের ব্যবসা বাণিজ্য করে যে টাকা আয় করি সে টাকা থেকে ২৫% আমি আমার ইউনিয়নের জনগণের জন্য রেখে দিয়েছি। তাছাড়া নিজের ইউনিয়নের বরাদ্ধ তো আছেই।

তিনি আরো বলেন, আমার প্রিয় স্যার হবিগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়াম্যান ডাঃ মুশফিক হোসেন চৌধুরী আমাকে অনেক আদর করেন, আমার ইউনিয়নের জনগনের জন্য চাইলেই তিনি আমাকে বরাদ্ধ দেন। কচুয়াদি শ্মশান কালী মন্দিরের অনুদানও স্যারের দেয়া। স্যার বলেছেন মিরপুর ইউনিয়নে আরো বেশি বেশি অনুদান দিবেন।

তিনি বলেন, আমি নির্বাচিত হলে মিরপুর ইউনিয়নকে উপজেলার মডেল ইউনিয়ন হিসাবে তৈরি করব। উন্নয়ন কি জিনিষ আমি দেখাতে চাই।

 

 

হবিগঞ্জের প্রতিটি ইউনিয়নে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

স্বাস্থ্যসেবা ও সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে হবিগঞ্জ জেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকায় মা ও শিশু স্বাস্থ্য, নারী উন্নয়ন, স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে আগ্রহী পুরুষ/মহিলাদের নিকট হতে নিন্ম পদত্ত ঠিকানায় দরখাস্ত আহব্বান করা যাচ্ছে।

 

পদের নাম : উপজেলা কো-অর্ডিনেটর, পদের সংখ্যা: ৯, শিক্ষাগত যোগ্যতা ও বেতন: এইসএসসি/সমমান, ফিল্ড অফিসারদের কাজের তাদরকির প্রতিবেদ তৈরি করতে হবে। বেতন ১০ হাজার।

 

পদের নাম: ফিল্ড অফিসার, পদের সংখ্যা: ৮৪, শিক্ষাগত যোগ্যতা ও বেতন: এসএসসি/সমমান, স্বাস্থ্য সেবা অভিজ্ঞদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিলযোগ্য, বেতন ৮ হাজার।

 

পদের নাম: পিয়ন, পদের সংখ্যা: ১, শিক্ষাগত যোগ্যতা ও বেতন: অস্টম শ্রেণী বেতন: ৩ হাজার।

 

নিয়মাবলী: (১) আগ্রহী প্রার্থীদের সম্প্রতি তোলা ৩ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতা ও জন্ম সনদ/জাতীয় পরচিয়পত্রের ফটোকপি ও মোবাইল নাম্বারসহ ২০/০৯/২০২০ তারিখের মধ্যে আবেদন করতে হবে। (২) নিয়োগপ্রাপ্তদের প্রশিক্ষণ ও কর্মস্থল স্ব-স্ব উপজেলা ও ইউনিয়নে নিয়োগ প্রদান করা হবে। (৩) নিয়োগপ্রাপ্তদেরকে স্বাস্থ্য বীমা ও উৎসব বোনাস প্রদান করা হবে।

 

আবেদন পাঠানোর ঠিকানা-

                                                                    প্রধান নির্বাহী

                                                            মুক্ত সামাজিক উন্নয়ন সংস্থা

                                                         দি ন্যাশনাল ডায়গনষ্টিক সেন্টার

                                                        পুরাতন হাসপাতাল সড়ক, হবিগঞ্জ।

                                                     মোবা: ০১৭১৬ ৫৮৯৫৭৯/ ০১৭১২ ৩৬৬৩৩০

লাখাইয়ে বৃক্ষ রোপণ করেন জেলা প্রশাসক

নিতেশ দেব, লাখাই (হবিগঞ্জ): হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলায় বৃক্ষ রোপণ করেন জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান।

মঙ্গলবার দুপুরে লাখাই উপজেলা প্রশাসন উদ্যোগে জেলা প্রশাসক লাখাই উপজেলা প্রাঙ্গণে নারিকেল গাছ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবনে আপেল গাছ রোপণ করেন তিনি। বৃক্ষরোপণে সকলকে উদ্ধুদ্ধ করেন। সকলের বাড়ির আঙ্গিনা ও খোলা জায়গা ফেলে না রেখে যেন বৃক্ষরোপণ করা হয় সেই অনুরোধ জানান তিনি ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন লাখাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মুশফিউল আমল আজাদ, লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়াছিন আরাফাত রানা উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া বেগমসহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ।

পরে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান লাখাই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় , উপজেলা ভূমি অফিস ও বুল্লা ইউনিয়ন ভূমি অফিস পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি বিভিন্ন বিষয়ে দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। বিভিন্ন প্রকল্পের কার্যক্রম পরিদর্শন, ভূমি উন্নয়ন কর আদায়ের হার ত্বরান্বিত করা, সরকারি খাস জমি ও পুকুর রক্ষণাবেক্ষণ এর বিষয়ে তিনি অধিক গুরুত্বারোপ করেন।

বানিয়াচংয়ে গাঁজা সেবন, মাতালের কারাদন্ড

এস এম খোকন: হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে গাঁজা সেবন ও হেফাজতে রাখার অপরাধে রাজু মিয়া (২৫) নামে এক মাতালকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

সে বানিয়াচং উপজেলার আলমপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র।

মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার আলমপুর বাজারে মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হোসেনের নির্দেশে বানিয়াচং থানার একদল পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইফফাত আরা জামান ঊর্মির নেতৃতত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করলে তিনি উপরোক্ত দন্ড প্রদান বরেন।

এব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইফফাত আরা জামান ঊর্মি জানান গাঁজা সেবন ও হেফাজতে রাখার অপরাধে রাজু মিয়াকে ০৬(ছয়) মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

হবিগঞ্জ আসার পথে চলন্ত ট্রেনে তরুণীকে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম থেকে হবিগঞ্জ আসার পথে আন্তঃনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনে এক তরুণীকে (৩০) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত যুবক সাঈদ আরিফকে (২৯) আটক করেছে পুলিশ। এছাড়া ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরিক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধর্ষণের শিকার তরুণী বানিয়াচং উপজেলার জাতুকর্ণ পাড়া এলাকার জনৈক ব্যক্তির মেয়ে। এছাড়া আটককৃত যুবক ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার আনোয়ার আজমের ছেলে। সে চট্টগ্রাম বিএসআরএম স্ট্রিল কোম্পানীর ট্যাকনিশিয়ান ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত রয়েছে।

জানা যায়- দীর্ঘ ৫ বছর পূর্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দুজনের পরিচয় হয়। এরপর থেকে তাদের মধ্যে প্রেম চলতে থাকে।

মঙ্গলবার সকালে ওই তরুণী চট্টগ্রাম থেকে হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে আন্তঃনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠেন। বিষয়টি ওই তরুণী পূর্বেই প্রেমীক সাঈদ আরিফকে জানিয়ে রাখে। এ সময় আরিফ তরুণীকে না জানিয়েই ফেনী থেকে শায়েস্তাগঞ্জ স্টেশনের টিকেট কেটে রাখে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ট্রেনটি ফেনী স্টেশনে আসলে আরিফ ট্রেনে উঠে। এ সময় সে তরুণীর কাছে আসে এবং ফুসলিয়ে পাশ্ববর্তী কেবিনে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে আরিফ।

এক পর্যায়ে ওই তরুণী অসুস্থ্য হয়ে পড়লে আরিফ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু ওই তরুণী আরিফকে পালাতে বাঁধা দেয়। এ সময় তরুণীর অসুস্থ্যতার সুযোগ নিয়ে আবারও র্ধষণ করে আরিফ। পরে ট্রেনটি শায়েস্তাগঞ্জ জংশনে পৌঁছামাত্রই ওই তরুণী চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন কেবিনে ভেতরে প্রবেশ করে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে এবং ও ধর্ষক আরিফকে আটক করে। পরে তরুণীকে অসুস্থ্য অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে, ঘটনার খবর পেয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) উৎসব কর্মকার হাসপাতালে পৌঁছে আরিফকে জনতার কাছ থেকে থানা হেফাজতে নিয়ে যান।

হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী বলেন- ‘৫ বছর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তাদের পরিচয় হয়। এরপর থেকে তাদের প্রেম চলে। মঙ্গলবার ট্রেনে ওই তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে বিষয়টি কতটুকু সত্য তা এখনও বলা যাচ্ছে না।’

তিনি বলেন- ধর্ষণের শিকার তরুণীকে ডাক্তারি পরিক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আরিফকে আটক করেছে পুলিশ। তবে তরুণীর স্বজনরা এখনও না আসায় কোন মামলা দায়ের হয়নি। মামলা দায়ের করলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।