Daily Archives: September 3, 2020

সিলেটে বাসচাপায় দাদি-নাতী নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি, সিলেট: সিলেটে রাস্তা পারাপারের সময় বাসচাপায় দাদি ও নাতী নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের পারাইরচক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘাতক বাস আটক করেছে।

নিহতরা হচ্ছেন, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার দাউদপুর গাংপার গ্রামের আহমদ আলীর ছেলে রাহাত (৭) ও তার দাদি বিবিজান বেগম (৬৫)।

মহানগর পুলিশের মোগলাবাজার থানার ওসি ছাহাবুল হোসেন জানান, রাস্তা পারাপারের সময় বাসচাপায় দাদি-নাতী নিহত হয়েছেন। ময়নাতদন্তের জন্য তাদের লাশ উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

মাধবপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি:  হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় একটি কোম্পানির নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে মনির হোসেন (৫০) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ ঘটনা ঘটে।

মনির হোসেন উপজেলার ছাতিয়াইন ইউনিয়নের সাকুসাইল গ্রামের মৃত মোবারক মিয়ার ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী আবুল কাশেম জানান, উপজেলার হরিতলা এলাকার নির্মিত বাদশা কোম্পানির নির্মাণাধীন একটি কোয়াটারে রাজমিস্ত্রির সহকারী হিসেবে কাজ করতেন মনির হোসেন।

বৃহস্পতিবার সকালে কাজ করতে গিয়ে অসাবধানতাবশত ভবন থেকে মাটিতে পড়ে যান তিনি। এ সময় অন্যান্য শ্রমিক তাকে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মাধবপুর থানার ওসি মো. ইকবাল হোসেন এ সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নবীগঞ্জে উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছের পােনা অবমুক্ত

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি:
নবীগঞ্জ উপজেলায় ২০২০-২১ অর্থ বছরে উন্মুক্ত জলাশয়ে পােনামাছ অবমুক্ত করা হয়েছে ।
বৃহস্পতিবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের ইমামগঞ্জ বাজারে গােপলা নদীতে বিভিন্ন প্রজাতির পােনামাছ অবমুক্ত করে এর উদ্বোধন করা হয় ।
মৎস্য দপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়িত রাজস্ব কর্মসূচির অর্থায়নে পরিচালিত ও নবীগঞ্জ সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের আয়ােজনে এ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে পােনামাছ অবমুক্ত করেন হবিগঞ্জ -১ আসনের সংসদ সদস্য গাজী মােহাম্মদ শাহনওয়াজ মিলাদ ।
এতে সভাপতিত্ব করেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন ।
পরে উপজেলা সদরের পারুয়া বিল , থানা পুকুরসহ বিভিন্ন উন্মুক্ত জলাশয়ে মােট ৩৩৪ কেজি মাছের পােনা অবমুক্ত করা হয় ।
এতে বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম , জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শাহজাদা খরছু , নবীগঞ্জ উপজেলা মৎস কর্মকর্তা আসাদ উল্লাহ , দেবপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মােহিত চৌধুরী প্রমুখ।

৩৭ দিন পর কাজে যোগ দিল দলই চা বাগানের চা শ্রমিকরা

পিন্টু দেবনাথ, কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার): দীর্ঘ ৩৭ দিন বন্ধ থাকার পর মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী দলই চা বাগানে উপজেলা প্রশাসন, চা শ্রমিক নেতৃবৃন্দ, শ্রম অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও মালিক পক্ষের যৌথ বৈঠক শেষে দ্রুততম সময়ে মামলা প্রত্যাহার ও বিতর্কিত ব্যবস্থাপককে বদলীর আশ্বাসে বৃহস্পতিবার চা বাগান খুলেছে।

বৈঠক শেষে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দলই চা বাগানের শ্রমিকরা কাজে যোগ দিয়েছে। গত ২৭ জুলাই সন্ধ্যায় আকস্মিক কর্তৃপক্ষ নোটিশ দিয়ে দলই চা বাগান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করেছিল।

মালিক পক্ষের নোটিশে গত ২৮ জুলাই থেকে দলই চা বাগান দীর্ঘ ৩৭ দিন বন্ধ ছিল। এ নিয়ে গত ২৯ জুলাই থেকে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগ তিন দফা
বৈঠক, মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের উপস্থিতিতে ১৭ আগষ্টের বৈঠকের পরও দলই চা বাগান বন্ধ ছিল। এ নিয়ে শ্রীমঙ্গলস্থ শ্রম অধিদপ্তর কর্মকর্তার কার্যালয়ে কয়েক দফা বৈঠকের পরও কোন লাভ হয়নি। সর্বশেষ গত বুধবার মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদের পরামর্শে ও নির্দেশনায় বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় আবারও দলই চা বাগান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শ্রম অধিদপ্তর শ্রীমঙ্গল কার্যালয়ের উপ-পরিচালক নাহিদুল ইসলাম, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, শ্রীমঙ্গল এর উপ-মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ মাহবুবুল হাসান, কমলগঞ্জ থানার ওসি মো. আরিফুর রহমান, দলই চা বাগান কোম্পানীর উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বাংলাদেশ চা
শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী, সহ সভাপতি পংকজ কন্দ,সাংগঠনিক সম্পাদক বিজয় হাজরা, অর্থ সম্পাদক পরেশ কালিন্দি, মনু-দলই ভ্যালী সভাপতি ধনা বাউরী, সাধারণ সম্পাদক নির্মল দাশ পাইনকা, দলই চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি নায়েক, সাধারণ সম্পাদক সেতু রায়সহ চা শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

শারিরীক অসুস্থতার জন্য বৈঠকে উপস্থিত না থাকলেও দলই চা বাগান কোম্পানির এজিএম খালেদ মঞ্জুর খান মোবাইল ফোনে শ্রমিকদের দাবী দাওয়া মেনে
নেয়ার আশ্বাস দেন। তবে দলই চা বাগানের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক মো. জাকারিয়াসহ কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ব্যাপক আলোচনা শেষে বিতর্কিত দলই চা বাগানের ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলামকে বদলী ও চা শ্রমিকদের জন্য বন্ধকালীন মজুরী ও বাগান
কতৃপক্ষের দায়েরকৃত মামলা দ্রুততম সময়ে প্রত্যাহারের আশ্বাস দেওয়া হয়। এর পর বেলা সাড়ে ১২টা থেকে দলই চা বাগানের শ্রমিকরা দীর্ঘ ৩৭ দিন পর প্লান্টেশন এলাকায় চা পাতা উত্তোলন কাজে যোগ দেয়।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রাম ভজন কৈরী বলেন, দলই চা বাগানের বিতর্কিত
ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলামের বাগানে প্রবেশ না করা, চা শ্রমিকদের জন্য বন্ধকালীন মজুরি দেওয়া ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দের নামে দায়েরকৃত মামলা দ্রুততম
সময়ের মধ্যে প্রত্যাহারের আশ্বাস প্রদান করেন মালিক পক্ষ। এ অশ্বাসে সন্তোষ প্রকাশ করে দীর্ঘ ৩৭ দিন পর দলই চা বাগানের শ্রমিকরা বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে কাজে যোগ দিয়েছেন।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক দীর্ঘ ৩৭ দিন পর দলই চা বাগান খোলা ও চা শ্রমিদের কাজে যোগদানের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দলই চা
বাগান মালিক পক্ষের দেওয়া আশ্বাস পূরণ হলে আর দলই চা বাগানে সমস্যা থাকার কথা নয়। তিনি জরুরী ভিত্তিতে দলই চা বাগানের শ্রমিকদের মানবিক সহায়তা
প্রদানের আশ্বাস দেন।

কমলগঞ্জে ক্লিন এন্ড বিউটিফুল এর উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ক্লিন এন্ড বিউটিফুল এর উদ্যোগে শমশেরনগর বাজারে ৩০০ মাক্স বিতরণ করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টায় বিতরণ কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করেন শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির অফিসার্স ইনচার্জ অরুপ কুমার চৌধুরী, আব্দুল মছব্বির একাডেমির সভাপতি আকমল মাহমুদ, ক্লিন এন্ড বিউটিফুল এর সভাপতি হাফিজুল হক চৌধুরী, শমশেরনগর ইউপি সদস্য শেখ রায়হান ফারুক, ক্লিন এন্ড বিউটিফুল এর সাধারণ সম্পাদক
শিমুল কান্তি পাল, সিরাজুল ইসলাম সিপন, সাইদুর রহমান সুমন, মামুনুর রহমান, রিয়াজুর রহমান রিজন, নবিল সহ ক্লিন এন্ড বিউটিফুল এর সদস্যবৃন্দ।

প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে প্রয়োজন সমন্বিত প্রচেষ্টা

নিজস্ব প্রতিনিধি: সরকার শিক্ষাক্ষেত্রের অগ্রগতিতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে এক সিদ্ধান্তে ২৬ হাজার প্রতিষ্ঠানকে সরকারিকরণ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সুবিধা বাড়িয়ে দিয়েছেন শিক্ষকগণের। একে একে পূরণ করে  যাচ্ছেন তাদের সকল দাবি। তবে শুধুমাত্র সরকারের প্রচেষ্টায় শতভাগ সফল হওয়া সম্ভব না। দায়িত্বপ্রাপ্তদের আন্তরিকতা প্রয়োজন। বিশেষ করে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে প্রয়োজন শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সমন্বিত প্রচেষ্টা।

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে হবিগঞ্জ পৌর টাউন হলে সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং এসএমসি সভাপতিদের সাথে প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের  মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে এসব কথা বলেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির।

 

তিনি আরো বলেন, প্রতিটি এলাকার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর তদারকিতে রয়েছেন সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ। জনপ্রতিনিধিরাও কাজ করে যাচ্ছেন স্বতস্ফুর্তভাবে। এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গ রয়েছেন ম্যানেজিং কমিটিতে। সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টা থাকলে অবশ্যই সারাদেশে শিক্ষাক্ষেত্রে উদাহরণ সৃষ্টি করতে পারবে হবিগঞ্জ। এ সময় তিনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষকবৃন্দকে আরো আন্তরিকতার সাথে পাঠদানের আহবান জানান।

 

আবু জাহির বলেন, হবিগঞ্জবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট থেকে একটি মেডিক্যাল কলেজ নিয়ে এসেছি। শীঘ্রই হতে যাচ্ছে একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ও। হবিগঞ্জে শিক্ষাক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে এ প্রতিষ্ঠানগুলো। তাই ভালভাবে পাঠদানের পাশাপাশি সকল শ্রেণীপেশার মানুষের সন্তানদেরকে শিক্ষামুখী করার লক্ষ্যে প্রচেষ্টা চালানোর পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

 

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেন রুবেলের সভাপতিত্বে ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা  মাহমুদুল হকের পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলাম, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ তালুকদার ইকবাল, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি মো. ইসমাইল হোসেন, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান আউয়াল, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুর রহমান আউয়াল, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গাজিউর রহমান ইমরান, সদর উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  ফেরদৌস  আরা বেগম, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তা আক্তার, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হোসাইন মোঃ আদিল জজ মিয়া প্রমুখ।

 

পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত ও গীতা পাঠের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এর আগে অতিথিবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করেন শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। পরে তিনটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মোট ১ লাখ ৪০ হাজার  টাকার চেক হস্তান্তর করেন প্রধান অতিথি।

জগন্নাথপুরে চাঁদাবাজ শাহজাহান গ্রেফতার

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে চাঁদাবাজি মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামী শাহজাহানকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

গ্রেফতার হওয়া চাঁদাবাজ উপজেলার চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের বাউধরণ (ওয়াহিদনগর) এলাকার আশিকুর রহমানের ছেলে।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭ টায় জগন্নাথপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অনিক কুমারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন অভিযান পরিচালনাকারী এসআই অনিক।

তিনি বলেন, ২০১১ সালের একটি চাঁদাবাজির মামলায় শাহজাহানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে দীর্ঘদিন পলাতক ছিল। গতকাল ৭টার দিকে বাউধরণ থেকে তাকে গ্রেফতার করে আজ (বৃহস্পতিবার) আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মাধবপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবকের মৃত্যু

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত ২৫ নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শায়েস্তাগন্জ রেল ফাঁড়ির পুলিশ উপজেলার ছাতিয়াইন রেলষ্টেশনের অদুরে রেল লাইনের প্বাশ থেকে যুবকের ক্ষত বিক্ষত লাশ উদ্বার করেছে।

শায়েস্তাগন্জ রেল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই হুমায়ূন কবির সত্যতা নিশ্চত করে বলেন ঢাকা গামী আন্তঃনগর কালনি ট্রেনে কাটা পড়ে যুবক মারা গেছে।

স্হানীয় সুত্রে খবর পেয়ে লাশ উদ্বার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।তবে এখন ও নিহত যুবকের পরিচয় নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

সিলেটে প্রতিপক্ষের হামলায় যুবকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি, সিলেট: সিলেট সদর উপজেলার ৩নং খাদিমনগরের ইউনিয়নের ছালেহ পুর গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় তানভির আহমদ (২০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি ওই গ্রামের শফিক মিয়ার ছেলে।

বুধবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এরআগে ওইদিন বিকেলে পূর্ব বিরোধের জেরে একই গ্রামের আব্দুল গণির ছেলেরা তাদের বাড়ির সামনে তানভিরের উপর হামলা চালায়। এসময় তারা তানভিরের মাথায় ও ঘাড় বেশ কয়েকটি ছুরিকাঘাত করে। পরে গুরুতর আহতবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নিহতের পিতা শফিক মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জায়গা সংক্রান্ত বিরোধ চলছে আব্দুল গণির পরিবারের সাথে। পূর্বে গণি মিয়ার ছেলে তোয়াহিদ, ভাতিজা পাপ্পু আমার উপর হামলা চালায়। বিষয়টি মিমাংসা হলে তারা আমার ছেলেকে একাধিকবার আক্রমণ করা চেষ্টা করে। বুধবার বিকেলে আমার ছেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে বাজারের দিকে যাওয়ার পথে গণি মিয়ার ছেল ও ভাতিজা তাদের নয়া বাড়ির সামনে হামলা চালায়।

তিনি আরও বলেন, আমার ছেলে মাথায় ও ঘাড়ে ৭-৮টি ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। মাথার আঘাতটি গুরুতর হওয়ায় অতিরিক্ত রক্ত করণে আমার ছেলের মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানান। আমার ছেলে ৫ম শ্রেণী পড়ালেখা করার পর আর পড়াশুনা করেনি। ২ ভাই ও ২ বোনের নিহত তানভির আমার বড় ছেলে। গত কয়েকমাস পূর্বে থেকে তাকে ড্রাইভিং শিখাচ্ছি।

 

সাংবাদিক কাজী সুজনের পিতা আর নেই

নিজস্ব প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার সাংবাদিক কাজী মাহমুদুল হক সুজনের পিতা অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক কাজী আব্দুল হান্নান ওরফে মুহিব মাষ্টার আর নেই।

বার্ধক্য জনিত কারনে বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা ১০ মিনিটে উপজেলার সাটিয়াজুরী গ্রামের নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি….রাজিউন)।

মৃত্যুকালে মরহুমের বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। মৃত্যকালে তিনি এক ছেলে দুই মেয়ে নাতী নাতনীসহ অসংখ্য আত্নীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুমের জানাযার নামাজ আজ বৃহস্পতিবার বাদ আছর নামাজ পর নিজ বাড়ীতে অনুষ্টিত হইবে।

উনার মৃত্যতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে করাঙ্গীনিউজ পরিবার।

হবিগঞ্জে ৫ সাংবাদিকসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সুশান্ত দাশ গুপ্তসহ ৫ সাংবাদিকসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার মানহানি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে বিজ্ঞ বিচারক শাহিনুর আক্তারের আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহি। মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছে আদালত।

মামলার অন্যান্য আসামী হলেন- ‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক নুরুজ্জামান মানিক, বার্তা সম্পাদক রায়হান উদ্দিন সুমন, স্টাফ রিপোর্টার তারেক হাবিব, সোনালী প্রিন্টিংস ও মুদ্রাকার এর পরিচালক শোয়েব চৌধুরী, মাধবপুরের ধর্মঘর ইউনিয়নের মালঞ্চপুর গ্রামের জহিরুল ইসলামের ছেলে নুর আলম ওরফে শাহীন, তার ভাই মাহতাবুর আলম জাপ্পি, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লুকড়া ইউনিয়নের যাদবপুর গ্রামের শাহজাহান মিয়ার স্ত্রী নাজিরা বেগম ও তার স্বামী শাহজাহান মিয়া।

মামলার এজাহারের তিনি উল্লেখ্য করেন- আসামীরা ‘দৈনিক আমার হবিগঞ্জ’ পত্রিকায় বিভিন্ন সময় মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করে এবং তা ফেসবুকের মাধ্যম প্রচার করে সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের সম্মানহানী করে আসছেন। আসামীরা মানহানি এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার আসামীও। মামলার ১ ও ৭নং পরস্পর যোগসাজসে বিভিন্ন সময় আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার করে আমার সম্মানহানী করে। মামলার ৮ ও ৯নং আসামী জ্বাল দলিল সৃষ্টি করিয়ে সংবাদপত্রে মিথ্যা ও তথ্য সরবরাহ করে আমার সম্মানহানী করে।

গত ২৪ জুলাই দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রনোদিত ও মিথ্যাভাবে ‘হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি-সেক্রেটারীর কান্ড, মাধবপুর ছাত্রলীগের সেক্রেটারী পদ দিতে ২০ লাখ টাকা লেনদেন’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশ করে। যাহা আদৌ সত্য নয়। ২ দিন পর অথাৎ ২৬ জুলাই আবারও দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় ‘পদ দেয়ার প্রলোভন হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি-সেক্রেটারীর আর্থিক কেলেংকারী ফাঁসের পর আরেক কান্ড, মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা মাহতাবুর আলম জাপ্পিকে পুলিশ পরিচয়ে হুমকি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। যাহা আদৌ সত্য নয়।

পরবর্তীতে ২৮ জুলাই দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবেঃ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহির বিরুদ্ধে এবার জমি দখলের অভিযোগ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। এছাড়া গত ৭ আগস্ট একই বিষয়ে দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ বরাবরে অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি, জেলা ছাত্রলীগের সদ্য স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহি’র বিরুদ্ধে জায়গা দখলের ঘটনায় তোলপাড়” বাস্তবে সংবাদে উল্লেখিত জমির বায়নাসূত্রে মালিক আমার ভাই এরশাদ মিয়া।

এ ব্যাপারে আদালতে কবলা পাওয়ার জন্য মামলা চলমান রয়েছে। এই মামলার ৮নং আসামী মোছাঃ নাজিরা বেগম আদালতে পক্ষভূক্ত হওয়ার জন্য আবেদন করলে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা ১ম আদালত তার আবেদন খারিজ করে। বিজ্ঞ বিচারক আদেশে নাজিরা বেগমের দলিলকে ভূয়া বলে উল্লেখ্য করেন। কিন্তু ৮ ও ৯নং আসামী উক্ত মিথ্যা সংবাদে ভুল তথ্য পরিবেশন করে আমার সম্মানহানী করে।

গত ১০ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় মূর্তিমান আতংক হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাইদুর-মাহি, জাপ্পির ২০ লাখ টাকার পর এবার রুপমের কাছ থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা হাতানোর তথ্য ফাঁস, প্রহসনের বিচার আখ্যা দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা জাপ্পির ভাইয়ের” বাস্তবে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। স্বয়ং রুপম হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে এ ধরণের ঘটনা অস্বীকার করেছেন। অস্বীকার করার পরও গত ১৪ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির আরেক নাটক, পদ দেয়ার প্রলোভনে অর্থ হাতানোর পর অপকর্ম ডাকতে রুপমকে দিয়ে জোরপূর্বক সংবাদ সম্মেলন শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। যাহা আদৌ সত্য নয়।

গত ২৩ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকায় “দিনভর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাস্যরস, গরু চুরি মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামী জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান মাহি’ বাস্তবে আমি কোন গরু চুরির ঘটনায় জড়িত ছিলাম না এবং উল্লেখিত মামলার এজাহার এবং এফআইআর এও আমার কোন নাম ছিল না। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে চার্জশীটে আমার নাম সংযুক্ত করে দেয়। যেহেতু, আমি ঘটনাতে সংযুক্ত ছিলাম না তাই বিজ্ঞ আদালত উক্ত মামলার রায় প্রদানকালে আমাকে বেকসুর খালস প্রদান করেন। কিন্তু জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হয়েছে। গত ২৬ আগস্ট দৈনিক আমার হবিগঞ্জ পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে “হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাহি’র সহযোগি ইয়াবা মামুনের অডিও ফাঁস শিরোনামে একটি স্ট্যাটার্সে প্রদান করে। বাস্তবে মামুন একজন রাজনৈতিক কর্মী হলেও আমার ব্যক্তিগত সহযোগী নয়।

চুনারুঘাটে ভেজাল সার বিক্রির দায়ে জরিমানা

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ সার বিক্রির দায়ে উপজেলার শানকলা বাজারের এক সার ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

পরীক্ষার পর ভেজাল সার প্রমাণিত হওয়ায় উপজেলা কমিশনার (ভূমি) মিলটন চন্দ্র পাল ভোক্তা অধিকার সংরক্ষিত আইনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বুধবার বিকেলে জালাল মিয়া নামের ওই ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেন। আর ভেজাল সার, কীটনাশক ঔষধ নষ্ট করে ফেলা হয়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন সরকার বলেন, এসব ভেজাল সার জমিতে ব্যবহারের ফলে কৃষকের ফলনে কোনো লাভ হয়নি। চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

বানিয়াচংয়ে ওয়ারেন্টভূক্ত ডাকাত গ্রেফতার

এস এম খোকন: হবিগঞ্জের বানিয়াচং থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে আনু মিয়া (৩৩) নামে ওয়ারেন্টভূক্ত এক ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে।

সে বানিয়াচং উপজেলার বড়ইউড়ি গ্রামের মোজাফ্ফর মিয়ার পুত্র।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) ভোর রাতে বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেনের নির্দেশনায় এসআই(নিঃ) আব্দুস ছত্তার সঙ্গীয় ফোর্সসহ বাহুবল মডেল থানা পুলিশের সহযোগীতায় তাকে গ্রেফতার করে।

ডাকাত আনুকে গ্রেফতারের পর এলাকার জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

এব্যাপারে বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেন জানান, একাধীক ডাকাতি মামলা ও ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আনু মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সকল প্রকার অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা বিপিএম পিপিএম স্যারের নির্দেশনায় জেলা পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করছে।