#  অরক্ষিত বানিয়াচঙ্গের শহীদ মিনার #  আসুন মশিউর রহমান এর পাশে দাড়াই #  বাহুবলে পটকা মাছ খেয়ে একই পরিবারের ১০ জন অসুস্থ #  মাধবপুরে ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার #  বানিয়াচঙ্গে এক যুবকের লাশ উদ্ধার #  সুনামগঞ্জে গৃহবধূকে হত্যার পর লাশ গুমের চেষ্টা! #  চুনারুঘাটে চা শ্রমিক খুন, আটক ২ #  চুনারুঘাটে মোটরসাইকেল ফুটবল টুর্নামেন্ট সম্পন্ন #  বাহুবলে সড়ক সংস্কার কাজে অনিয়ম দুর্নীতি #  বিশ্বম্ভরপুরে মাটিচাপা অবস্থায় গৃহবধুর লাশ উদ্ধার #  সানশাইন স্কুল পরিদর্শনে হবিগঞ্জ জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা #  বানিয়াচংয়ে নদীতে বিষ ঢেলে মাছ নিধন,জরিমানা #  শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে হেরে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা #  ঢাকাস্থ লাখাই ছাত্রকল্যাণ পরিষদের কমিটি গঠন #  হবিগঞ্জে বিএনপির বিশাল বিক্ষোভ মিছিল

জগন্নাথপুরে গ্রেফতার আতঙ্কে পুরুষশূণ্য কালনীরচর গ্রাম

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের কালনীরচর গ্রাম এখন পুরুষশূণ্য। গ্রামের পুরুষরা পুলিশের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। পুলিশ এসল্ট মামলায় গ্রেফতার এড়াতে গ্রাম ছেড়ে অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছেন।

সরজমিনে শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে গিয়ে দেখা গেছে গ্রামের অধিকাংশ পুরুষ বাড়িতে নেই। মহিলারা জানান, পুলিশ গ্রেফতার করে নিয়ে যাবে এই ভয়ে তারা গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে গেছেন।

আশারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য কালনীরচর গ্রামের বাসিন্দা শওকত মিয়া বলেন, গত শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) আসামী ধরাকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসী ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় গ্রামের ৩৯ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা বহু লোককে আসামী করে একটি পুলিশ এসল্ট  মামলা করা হয়। মামলা দায়েরের পর গ্রামের পুরুষরা গ্রেফতার এড়াতে পালিয়ে গেছেন।

আশারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু ঈমানি বলেন, আসামী ধরাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এসময় কয়েকজন পুলিশ আহত হলে মামলা হয়। শুনেছি মামলায় অনেক লোককে  আসামী করা হলে গ্রেফতারের ভয়ে অনেক লোক গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। পুলিশ যাতে নিরাপরাধ কাউকে হয়রানি না করে এটাই  আমাদের প্রত্যাশা।

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর সাথে শনিবার বিকেলে আলাপ হলে তিনি বলেন, প্রকৃত দোষীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। নিরাপরাধ কাউকে হয়রানি করা হবে না।

উল্লেখ্য, থানার এসআই অনুজ কুমার দাসের নেতৃতে একদল পুলিশ বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের কালনীরচর গ্রামের মোটর সাইকেল পোড়ানোর মামলার আসামী কালনীরচর গ্রামের শবজুলকে গ্রেফতার করলে তার আত্মীয় স্বজনসহ গ্রামবাসী পুলিশের হাত থেকে আসামী ছিনিয়ে নেয়। এ সময় লোকজন পুলিশের উপর হামলা চালায়। হামলায় ৫ পুলিশ সদস্য আহত হন। আহত এসআই আফছর উদ্দিন (৪০), এসআই অনুজ কুমার দাস (৪২), এসআই অনিক (৪৫), কনস্টেবল মিজানুর রহমান (৩৮), কনস্টেবল এমরান হোসেন (৩৯) কে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করা হয়।

মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত গুরুতর আহত এসআই আফছর উদ্দিনকে সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ কালনীরচর গ্রামের দুই মহিলাসহ ৭জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো হেনা বেগম (৪০), লায়লা বেগম (৪২), লিটন মিয়া (৪০), নজরুল ইসলাম (৩৫), আনা মিয়া (৪৪), শাহআলম (২৮)।

এ ব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে ৩৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা লোকদের আসামী করে শুক্রবার জগন্নাথপুর থানায় একটি পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন।