1. nafiz.hridoy285@gmail.com : Hridoy Fx : Hridoy Fx
  2. miahraju135@gmail.com : MD Raju : MD Raju
  3. koranginews24@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক
বাহুবলে মামলাবাজ আব্দুল কাইয়ুমের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী - করাঙ্গীনিউজ
  • Youtube
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৩ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

বাহুবলে মামলাবাজ আব্দুল কাইয়ুমের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বাহুবল প্রতিনিধি:
বাহুবল উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত নোয়াগাঁও গ্রামের আব্দুল কাইয়ুমের মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলায় অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। আব্দুল কাইয়ুমের বড় বোন রেনু বেগম বলেন আব্দুল কাইয়ুম আমার বাবার হত্যাকারী। সে আমার বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। তিনি আরও বলেন আমার বড় ভাই আব্দুস সালাম তার অত্যাচারে অনেকদিন বাড়ি ছাড়া ছিল। ইদানীং আবার বাড়িতে আসলে তার ও তার মাস্টার্স পড়ুয়ার মেয়ে ও অনার্স পড়ুয়া ছেলের এবং তার স্ত্রীর নামে একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে। আমার মেজো ভাই আব্দুল মন্নান ও চাচাতো ভাই আব্দুর রহমান তার অত্যাচারে বাড়ি ছেড়ে আর বাড়িতে আসতে পারিনি। তারা দু’জন অন্যত্র মারা গেছে। আব্দুল কাইয়ুমের চাচাতো ভাই সিরাজ উল্লার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন আমাকে ও আমার সাথে অন্যান্য ব্যক্তিদের জড়িয়ে অনেকগুলো মিথ্যা মামলা দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে হয়রানি করে আসছে। সে আমার শশুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মর্তুজ আলীকে মিথ্যা চুরির অপবাদ দিয়ে জেল খাটায়। সে আমার সম্পত্তি যা ছিল সব নষ্ট করে ফেলেছে। কিছু সম্পত্তি অন্যায় ভাবে দখল করে আছে। বর্তমানে তৌফিকুল আলম কামাল নামের অজ্ঞাত এক ব্যাক্তিকে দিয়ে একাধিক মামলা সে ও তার ছেলে স্বাক্ষী হিসেবে নাম দিয়ে করিয়েছে। তিনি আরও বলেন ২০০৩ সালে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদিরের মাধ্যমে এক সালিশি বৈঠকে সে স্বীকার করছিল আর মামলা মোকদ্দমা করবে না। কিন্তু কয়েকবছর ধরে আবার শুরু করছে। সে আত্মঘাতীমূলক কাজ করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে।

এ ব্যাপারে নোয়াগাঁও গ্রামের বিশিষ্ট মুরুব্বি চেরাগ আলী বলেন সে আমার সাথে জায়গা জমি নিয়ে খুব ঝামেলা করছিল। পরে পুলিশের মাধ্যমে তার সাথে বিষয়টার কিছুটা সমাধান হয়।

বিশিষ্ট মুরুব্বি মঞ্জুর হোসেন বলেন সে নিজের স্বার্থের জন্য যেকোনো জগন্য কাজ করতে পারে। বিশিষ্ট মুরুব্বি আকল আলী বলেন সে অত্যন্ত মামলা বাজ লোক। কোন কারণ ছাড়াই মামলা করে দেয়। গ্রাম্য মুরুব্বি ডাকলে কোন কর্ণপাত করে না।

মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামিম আহমেদ বলেন তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। সে অত্যন্ত খারাপ প্রকৃতির লোক। আমার ডাকে সে সাড়া দেয় না। মিরপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামিলীগ সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন লিয়াকত তার অনেক বিষয়ে সমাধান করতে পারেন নি।

জানা যায় মিথ্যা মামলার আশ্রয় নিয়ে আব্দাপটিয়া গ্রামের ফজর আলী সহ কয়েকজনকে ২০০৯ সালে, মির্জাটুলা গ্রামের মর্তুজ আলী সহ কয়েকজনকে ২০০২ সালে নোয়াগাও গ্রামের বিশিষ্ট মুরুব্বি আজিম উল্লাহ সহ কয়েকজনকে ২০১৯ সালে, দত্তপাড়া গ্রামের কামাল মিয়া সহ একাধিক ব্যাক্তিকে ২০০৩ সালে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে। এছাড়াও অসংখ্য মামলা রয়েছে। তার এহেন কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। মামলার ভয়ে তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে চায় না।

মামলাবাজ আব্দুল কাইয়ুমের বড় ভাই আব্দুস সালাম বলেন, তার কারণে আমি ৩০ বছর বাইরে ছিলাম, ইদানীং ৫ বছর যাবত বাড়িতে আসলে সে আমার আমার ও আমার স্ত্রী ছেলে মেয়ের নামের অসংখ্য মিথ্যা মামলা করেছে। তার উদ্দেশ্য হচ্ছে আমার বাড়িঘর দখল করা। সে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিচ্ছে। জেলের ভয় দেখাছে।আমার বড় মেয়ে মাষ্টার্সে পড়ে, আমার বড় ছেলে অনার্স ৩য় বর্ষে পড়ে. তার মিথ্যা মামলা আমাকে উদ্বিগ্ন করে রেখেছে,, আমি খুব অতিষ্ঠ হয়ে গেছি।আমার আর বাড়িতে থাকা সম্ভব হচ্ছে না

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
x