1. nafiz.hridoy285@gmail.com : Hridoy Fx : Hridoy Fx
  2. miahraju135@gmail.com : MD Raju : MD Raju
  3. koranginews24@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক
বাহুবলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাস্তার বেহাল দশা - করাঙ্গীনিউজ
  • Youtube
  • English Version
  • বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৫০ অপরাহ্ন

করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৩ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

বাহুবলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাস্তার বেহাল দশা

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ২৮ জুলাই, ২০২২

বাহুবল (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: বাহুবল উপজেলার ৭নং ভাদেশ্বর ইউনিয়নের পূর্বজয়পুর গ্রামের মৃত শেখ খোরশেদ আলী বাড়ি থেকে পূর্বজয়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত রাস্তার বেহাল দশা ভোগান্তিতে পড়েছেন শত শত সাধারণ মানুষ ও শিক্ষার্থীরা।

দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় ১ কিলোমিটার রাস্তার অবস্থা বেহাল। এতে চলাচলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এলাকার সাধারণ মানুষ। গ্রামের প্রায় হাজার মানুষ এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করে থাকে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বর্ষার বৃষ্টির পানিতে রাস্তার দু’ধারের মাটি সরে গিয়ে রাস্তাটি ভেঙে পড়েছে। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, ভ্যানগাড়ি ও মোটরসাইকেল আরোহীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শুধু গাড়ি চালক নয়, পথচারীদের জন্যও দুর্বোধ্য হয়ে উঠেছে এ রাস্তাটি। সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তায় পানি জমে যায়। এমনকি রাস্তাটির কিছু কিছু জায়গা পানির নিচে তলিয়ে যায় তাই চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

৭নং ভাদেশ্বর ইউনিয়নের ৬নং ওর্য়াডের পূর্বজয়পুর গ্রামের প্রায় তিনশো টি পরিবারের প্রধান রাস্তাটি মাটির হওয়ায় সামান্য বৃষ্টি হলেই রাস্তায় কাদা হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। গ্রামের একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি পাকা না হওয়ায় গ্রামের মানুষকে বছরের পর বছর ধরে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বৃষ্টিতে একাধিক স্থানে ছোট-বড় খানাখন্দে পরিণত হচ্ছে রাস্তাটি, অনেক জায়গায় রাস্তার দুই ধারের মাটি সরে গিয়ে রাস্তা ভেঙ্গে পড়ছে।

ব্যাটারিচালিত ভ্যানগাড়ি ও মোটরসাইকেল আরোহীদের চড়ম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এছাড়াও রাস্তাটি দিয়ে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা যাতায়াত করে থাকে কিন্তু বর্ষা মৌসুমে রাস্তাটিতে কাদা পানি থাকার কারণে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে যেতে পারে না শিক্ষার্থীরা।

র্দীঘ সময় পার হলেও গ্রামীণ এই অবহেলিত মরণফাঁদ রাস্তায় এখন পর্যন্ত আধুনিকতার কোনো ছোঁয়া লাগেনি। এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন শতশত মানুষ চলাচল করছে ইউনিয়নের বিভিন্ন বড় রাস্তাসহ অনেক ছোটখাটো রাস্তা পাকা করণ করলেও এরকম একটা গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা পাকা করণ তো দূরের কথা রাস্তায় মাটি বড়াট করে উঁচু করা হচ্ছে না।

স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মিয়া জানান, গ্রামের মৃত শেখ খোরশেদ আলী বাড়ি থেকে পূর্বজয়পুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত এই রাস্তা এতটাই খারাপ যে ভ্যান গাড়ি সহ ছোট বড় একটা গাড়িও ঢুকতে সাহস পায় না, আর বৃষ্টি হলে তো কথাই নেই গাড়িতো দূরের কথা পায়ে হেটেও যাওয়া যায় না। আমরা রাস্তার সংস্কারের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধির শরণাপন্ন হলেও কোন প্রতিকার পাচ্ছি না। আমাদের রাস্তার করুন অবস্থা কিন্তু দেখার কেউ নেই।

পূর্বজয়পুর গ্রামের এডভোকেট মিজান মিয়া বলেন, মৃত শেখ খোরশেদ আলী বাড়ি সামন থেকে পূর্বজয়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পযন্ত ১ কি. মি. রাস্তাটি র্দীঘদিনেও জনসাধারণের চলাচলের জন্য পাকা করণের তো দূরের কথা রাস্তার মাটি বড়াট পর্যন্ত করা হয়নি।আমাদের এলাকার রাস্তাটি মাটি বড়াট করে রাস্তাটি উচু করা হলে আমাদের কষ্ট দূর হবে। রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীর র্দীঘদিনের দাবি বলে তারা জানান।

এলাকার মাওলানা মুকলিছুর রহমান, ইদ্রিস আলী , আবরু মিয়া জানান, দীর্ঘদিনেও রাস্তা উন্নয়ন ও সংস্কার করা হয়নি। তাই যানবাহন তো দূরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচল করাই কঠিন। রাস্তার বেহাল দশার কারণে স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষার্থীদের চরম কষ্টে প্রতিষ্ঠানে যেতে হয়। রাস্তাটির সংস্কার হলে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজের শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষের চলাচলের পথ সুগম হবে।

স্থানীয়রা জানান, সামান্য বৃষ্টি হলেই একেবারে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। বৃষ্টির ফোটা পড়ার পরেই কাঁদা পানিতে একাকার হয়ে যায়। কাঁদায় চলতে গিয়ে অনেকেই পা পিছলে পড়ে গিয়ে গন্তব্যে যাবার আগেই বাড়িতে ফিরে আসতে বাধ্য হন।

শিক্ষার্থীরা সময় মতো স্কুলে যেতে পারে না। মেরামতের অভাবে এখন চলাচলের অযোগ্য। মেরামত করে চলাচল যোগ্য করে তোলার প্রত্যাশা স্থানীয়দের এবং এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ
x