1. nafiz.hridoy285@gmail.com : Hridoy Fx : Hridoy Fx
  2. miahraju135@gmail.com : MD Raju : MD Raju
  3. koranginews24@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক
বাবার পরিচয় দিয়ে হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি - করাঙ্গীনিউজ
করাঙ্গী নিউজ
স্বাগতম করাঙ্গী নিউজ নিউজপোর্টালে। ১৩ বছর ধরে সফলতার সাথে নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশন করে আসছে করাঙ্গী নিউজ। দেশ বিদেশের সব খবর পেতে সাথে থাকুন আমাদের। বিজ্ঞাপন দেয়ার জন‌্য যোগাযোগ করুন ০১৮৫৫৫০৭২৩৪ নাম্বারে।

বাবার পরিচয় দিয়ে হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি

  • সংবাদ প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২

করাঙ্গীনিউজ:
হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল থেকে বাবার পরিচয় দিয়ে এক নবজাতককে চুরি করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নবজাতককে হারিয়ে ভেঙে পড়েছেন শিশুটির মা, বাবাসহ স্বজনরা।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারী) সকালে নবজাতকদের বিশেষ সেবা ইউনিট থেকে এ চুরির ঘটনা ঘটে।

ওই শিশুটির মা ফেরদাউস আক্তার ও বাবা দেলোয়ার হোসেন শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার মড়রা গ্রামের বাসিন্দা।

এর আগে ওই ইউনিটটি পরিচ্ছন্ন করার কথা বলে তার স্বজনদের বের করে দেন দায়িত্বরতরা। এ ঘটনায় কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সদর হাসপাতলের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আমিনুল হক সরকার জানান, নবজাতক চুরি যাওয়ার ঘটনাটি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যান। বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

সদর মডেল থানার এসআই মো. ইয়াকুব আলী জানান, খবর পেয়ে তারা তাৎক্ষণিক হাসপাতালে গেছেন। বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছেন তারা।

ওই নবজাতকের নানি সফিনা খাতুন ও ফুফু শামসুন্নাহার জানান, ভোর সাড়ে ৬টায় নবজাতকটি স্বাভাবিকভাবে ডেলিভারি হয়। এর পর তার কান্না থামছিল না। একপর্যায়ে তাকে নিয়ে নবজাতকদের বিশেষ সেবা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে কিছু ওষুধ নিয়ে আসতে বলা হয়। ওষুধ নিয়ে যাওয়ার পর ঝাড়ু দেওয়ার কথা বলে তাদের বের করে দেন দায়িত্বরতরা। পরে তারা ভেতরে ঢুকে দেখতে পান নবজাতকটি নেই।

দায়িত্বরতরা জানান, তার বাবা এসে দুধ খাওয়ানোর কথা বলে শিশুটিকে নিয়ে গেছে। অথচ এ সময় তার বাবা হাসপাতালে আসেননি।

নবজাতকটির বাবা দেলোয়ার হোসেন জানান, তিনি বাড়িতে ছিলেন। ছেলে হয়েছে খবর পেয়ে সকালে হাসপাতালে এসে জানতে পারেন তার সন্তান চুরি হয়ে গেছে। তিনি সন্তান ফেরত চেয়ে জড়িতদের শাস্তি দাবি করেন।

সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সোমবার সন্তান জন্ম দিতে সদর আধুনিক হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি হন ফেরদাউস আক্তার। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টায় তিনি স্বাভাবিকভাবেই পুত্রসন্তান প্রসব করেন। এর পর শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে নবজাতকদের বিশেষ সেবা ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

সকাল ৯টার দিকে ইউনিটি পরিচ্ছন্ন করার কথা বলে ওই ইউনিটে ভর্তি সব নবজাতকের স্বজনদের বের করে দেন দায়িত্বরতরা। কিছুক্ষণ পর সেখানে প্রবেশ করে স্বজনরা দেখতে পান তোয়ালে পড়ে আছে। কিন্তু নবজাতক নেই। এ সময় তারা চিৎকার শুরু করলে দায়িত্বরতরা স্বজনদের জানান নবজাতকটির বাবা দুধ খাওয়ানোর কথা বলে তাকে নিয়ে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে বিষয়টি জানাজানি হলে হুলস্থুল পড়ে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ