মাধবপুরে বহুতল বিল্ডিয়ের মালিকরা সরকারী ভূমি পেতে মরিয়া

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের মাধবপুরে অর্ধশত কোটি টাকার সম্পদের মালিক এবং যুক্তরাষ্ট্রের সিটিজেনরাও পেশাগত পরিচয় ও সম্পদের পরিমান গোপন করে সরকারী বাজারের ফেরিফেরি ভূমি পেতে মরিয়া হয়ে ওঠেছে।

মাধবপুর বাজারে ১০শতাংশ জায়গার উপর নির্মিত একমাত্র ৮তলা বিল্ডিং সুরেশ প্লাজার সত্ত¡াধীকারী সুকেশ রায় ও তার ভাই ৪শতক জায়গার উপর ৪তলা বিশিষ্ট কামিনী প্লাজার মালিক কামিনী রায়ের ছেলে সনজিত কুমার রায় এ বছরের মার্চ মাসের ৫তারিখে সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর আবেদন করেন।

সরকারী খতিয়ানের ০.০০৫০ একর অর্থাৎ আধা শতক বাজার ভিটি রকম ভূমি পাওয়ার জন্য। দাখিল কৃত তাদের ৯২ ও ৯৩ নং আবেদনে উল্লেখ করেন যে তারা উভয়ই বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী।

উক্ত ব্যবসায়ের আয়ের উপর নির্ভর করে অতিকষ্ঠে পরিবার পরিজন নিয়ে জীবন যাপন করছে। ক্ষুদ্র ব্যবসায় হিসেবে উল্লেখিত পরিমান ভূমি ব্যবসায়ীক সুবিধার জন্য তাদেরকে সরকারী নীতিমালা মোতাবেক দেওয়ার জন্য।

বিগত বছরের মাধবপুর বাজার থেকে উচ্ছেদ হওয়া ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আলমগীর কবির, মধু মিয়া, বাবুল রায়সহ বেশ কয়েকজন উচ্ছেদ হওয়া ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী  অভিযোগের সুরে জানান- সরকারের স্বার্থে আমাদেরকে উচ্ছেদ করা হয়েছে পুনঃবাসন করার শর্তে। আমরা ভাসমান ব্যবসায়ীরা পরিবার পরিজন নিয়ে অতিকষ্টে দিনাতিপাত করছি। এভাবে শত কোটি টাকার সম্পদের মালিকরা আমাদের মত আবেদন করে বাজার ভিটি নিয়ে গেলে আমাদের সারা জীবন পথে বসেই থাকতে হবে। আবেদনের বিষয়ে মাধবপুর বাজার ৪ তলা বিশিষ্ট কামিনী প্লাজার মালিক সনজিত কুমার রায়ের সাথে আলাপ করলে তিনি আবেদন দাখিলে বিষয়টি স্বীকার তিনি জানান, ব্যাংকের একমাত্র সিসি লোন ব্যতিত কোন দেনা নাই।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) আয়েশা আক্তার জানান-আবেদন করলেই সবাইকে দেওয়া যাবে না। যাদেরকে উচ্ছেদ করা হয়েছিল তাছাড়া প্রকৃত পক্ষে যারা বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক তাদের দেওয়া হতে পারে।

Social Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 3 =