চলন্ত ট্রেনে কিশোরী ধর্ষণ: শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে থানায় মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ: চট্টগ্রাম থেকে হবিগঞ্জ আসার পথে আন্তঃনগর ‘পাহাড়িকা এক্সপ্রেস’ ট্রেনে তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় ওই তরুণী বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) সবুজ মল্লিক।

তিনি জানান, চলন্ত ট্রেনে হবিগঞ্জের এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় একমাত্র আসামী করা হয়েছে সাঈদ আরিফ নামে এক যুবককে। পরে মামলাটি শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে থানাকে তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়।

বিষয়টি নিয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. হুমায়ূন কবির বলেন- ‘মামলার তদন্ত কাজ চলমান রয়েছে। মামলার সাক্ষীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।’ এছাড়া তরুণীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় আটক আসামির বিরুদ্ধে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নতিভুক্ত করা হয়েছে বলেও জানা তিনি।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ৫ বছর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আরিফের সাথে পরিচয় হয় বানিয়াচং উপজেলার জাতুকর্ণ পাড়ার জনৈক ব্যক্তির মেয়ের। এরপর থেকে তাদের মধ্যে প্রেম চলতে থাকে। গত মঙ্গলবার সকালে ওই তরুণী চট্টগ্রাম থেকে হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে আন্তঃনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠেন। বিষয়টি ওই তরুণী পূর্বেই প্রেমীক সাঈদ আরিফকে জানিয়ে রাখে। এ সময় আরিফ তরুণীকে না জানিয়েই ফেনী থেকে শায়েস্তাগঞ্জ স্টেশনের টিকেট কেটে রাখে।

মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ট্রেনটি ফেনী স্টেশনে আসলে আরিফ ট্রেনে উঠে। এ সময় সে তরুণীর কাছে আসে এবং ফুসলিয়ে পাশ্ববর্তী কেবিনে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে আরিফ। এক পর্যায়ে ওই তরুণী অসুস্থ্য হয়ে পড়লে আরিফ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু ওই তরুণী আরিফকে পালাতে বাঁধা দেয়। এ সময় তরুণীর অসুস্থ্যতার সুযোগ নিয়ে আবারও ধর্ষণ করে আরিফ।

পরে ট্রেনটি শায়েস্তাগঞ্জ জংশনে পৌঁছামাত্রই ওই তরুণী চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন কেবিনে ভেতরে প্রবেশ করে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে এবং ও ধর্ষক আরিফকে আটক করে। পরে তরুণীকে অসুস্থ্য অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন বুধবার আরিফকে কারাগারে পাঠানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × two =