Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  একদিনে সর্বোচ্চ আড়াই হাজার রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ২৩ জনের #  মাধবপুরে খেলা নিয়ে সংঘর্ষে যুবকের মৃত্যু, মা ছেলে আটক #  বাহুবলে সংঘর্ষের ঘটনায় ৫শ জনের বিরুদ্ধে মামলা,গ্রেফতার ২৫ #  লিবিয়ায় মানব পাচারকারীদের গুলিতে ২৬ বাংলাদেশিসহ নিহত ৩০ #  লাখাইয়ে ‘বিপর্যয়ে সৈনিকরা’ কাজ করেছে দিন রাত #  করোনা ও কৃষি #  হবিগঞ্জে আরো ৭ জন শনাক্ত, মোট ১৭১ #  বাহুবলে অবৈধ বালু উত্তোলন, লক্ষ টাকা জরিমানা #  বাহুবলে সরকারি চালের বস্তা জব্দ: দোকান কর্মচারীর জেল #  ১৫ জুন পর্যন্ত মানতে হবে ১৫ শর্ত #  খোয়াই পত্রিকার সার্কুলেশন ম্যানেজারের পিতা আর নেই #  নবীগঞ্জে সরকারি ২৫০০ টাকার তালিকায় অনিয়ম! #  দেশে করোনায় নতুন শনাক্ত ২০২৯ #  শ্রীমঙ্গলে মুক্তিযোদ্ধা বিকাশ দত্ত’র সৎকার করল এক মুসলিম সংগঠন #  বাহুবলে মিষ্টির দোকান থেকে সরকারী চাল জব্দ: আটক ১

মিরপুরে সহস্রাধিক অসহায়দের মাঝে নগদ অর্থ দিলেন শিল্পপতি হাজী দুলাল

বাহুবল (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার বিশিষ্ট শিল্পপতি সামিন ব্রিকস ও নিয়ন এন্টারপ্রাইজের সত্তাধিকারী মিরপুর বাজারের বাসিন্দা হাজী দুলাল মিয়া অসহায় হতদরিদ্র সহস্রাধিক নারী পুরুষের মাঝে নগদ টাকা প্রদান শুরু করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকাল থেকে পশ্চিম জয়পুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে এ অর্থ প্রদান শুরু করেছেন।

দুপুর সাড়ে ১২টায় সরজমিনে তার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে শত শত নারী পুরুষ তার বাড়ীর গেইটের সামনে ভিড় জমিয়েছেন। ভলান্টিয়াররা সাথে সাথে তাদের হাতে নগদ টাকা তুলে দিচ্ছেন।

বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত নারী পুরুষরা জানান, প্রতি বছরের রোজার ২৭তম দিনে তিনি হাজার মানুষের মাঝে ত্রানের টাকা বিতরন করেন।

মীরেরগাও গ্রাম থেকে আসা সত্তোর্ধ নারী কমলা বিবি জানান, অনেক বছর ধরে হাজী দুলাল সাহেবের কাছ থেকে যাকাতের টাকা নিচ্ছেন।তিনি কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন এমন ভাল মানুষ যদি ঘরে ঘরে জন্ম নিত তাহলে আমরার অভাব থাকত না।

লামাতাশি থেকে আসা খোকন বলেন, অন্যান্য বছর তিনি টাকার সাথে কাপড়ও দিতেন, তবে এ বছর তিনি টাকার পরিমান বাড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন আমি পেয়েছি ২ হাজার। প্রতি রমজান মাস আসলে উনার টাকা কাপড়ের অপেক্ষায় বসে থাকি।

ফদ্রখলা গ্রাম থেকে আসা রহিমা বিবি নামের এক মহিলা পেয়েছেন ৫ হাজার টাকা। তিনি এ প্রতিনিধিকে বলেন, ঘরে টিন নাই, পুরো ঘর বৃষ্ঠির পানিতে একাকার হয়ে গেছে। অনেত জায়গায় গিয়েছেন কেউ তাকে দুই বান টিন দেয়নি। তিনি এ টাকা পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

এ ব্যাপারে হাজী দুলাল মিয়া বলেন, সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে আমার ব্যবসার যাকাতের অংশটুকু আমার এলাকার অসহায়দের মধ্যে বিতরন করে আসছি। তিনি আরো বলেন, শুধু রমজান মাসেই নয় আমি সব সময়ই অসহায় মানুষের জন্য কিছু করার চেষ্টা করি। তিনি বলেন, জন প্রতি ৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বনিন্ম ৫ শ টাকা করে দিচ্ছি। শুধু এ রমজানে ১৪ লক্ষ টাকা দরিদ্র মানুষের মাঝে পৌঁছে দিচ্ছি।