Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  জনগণের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ৪ বার্তা #  হবিগঞ্জে সহস্রাধিক লোকের হাতে খাবার তুলে দিলেন আবু জাহির #  নবীগঞ্জে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে মাক্স বিতরন #  আজমিরীগঞ্জে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর সমন্বয়ে অভিযান #  হবিগঞ্জে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু #  বানিয়াচংয়ে প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ #  মাধবপুরে সায়হাম গ্রুপের সৌজন্যে মার্কস বিতরণ #  করোনা ভাইরাসের মাঝেও ভিক্ষা করছেন হবিগঞ্জের মীর চান #  মাধবপুরে করোনা ভাইরাস রোধে সেনাবাহিনীর প্রচারাভিযান #  ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনও করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি #  শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু হলো সংসদ টেলিভিশনে #  মাধবপুরে পুলিশের বাড়িতে ডাকাতি #  নবীগঞ্জে বাড়ি বাড়ি খাদ্য সামগ্রী বিতরণ #  আজমিরীগঞ্জে দু’পক্ষের সংঘর্ষে টেটাবিদ্ধসহ আহত ১০ #  শায়েস্তাগঞ্জে ইয়াবাসহ আটক ৩

আজান গুজবে মধ্যরাতের হবিগঞ্জ,মিছিলে উত্তাল পুরো জেলা

এম সাজিদুর রহমান:
করোনা ভাইরাস মাহামারি ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বব্যাপী। আমাদের মাতৃভূমিতেও এ ভাইরাসের সংক্রমণ। তাই সরকারি – বেসরকারি পর্যায়ে গ্রহণ করা হয়েছে নানা পদক্ষেপ। জাতিকে এ মহামারী থেকে রক্ষার জন্য সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে প্রশাসনকে সহায়তার জন্য। ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে শপিং মল, অফিস আদালত,সহ গণপরিবহন। নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে জনসমাগম এলাকা।

এরই মাঝে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১০ টায় ছড়িয়ে পড়ে মহাগুজব। স্যোসাল মিডিয়াসহ মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে পড়ে সারাদেশে এক যোগে আজান দিতে। সেই গুজবের ব্যাপকতা চলছে গভীর রাত পর্যন্ত। কেউ বলছেন রাত ১২ টায় ভূমিকম্প হবে। সৌদি আরবে ভূমিকম্পে ভেঙে পড়ছে দালান ইত্যাদি।

অথচ চট্রগ্রামের যে হুজুরের নাম ভাঙ্গিয়ে গুজব রটানো হয়েছে তিনি লাইবে এসে আজান দেওয়ার নির্দেশনা অস্বীকার করেছেন। হবিগঞ্জের এক শিশু জন্মের পর মৃত্যুর আগে বলে গেছে কালোজিরা আর গোল মরিচ খেলে ভাল হবে করোনা ভাইরাস এরও কোন ভিত্তি নেই। এ জাতীয় বিভ্রান্তিমূলক অনেক গুজবে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে হবিগঞ্জ জেলায়।

গোজবে আতঙ্কিত মানুষ কোন আলেম ওবামার কথাও শুনতে চান না কি এক অদ্ভুত কান্ড। রাত ১০ টা থেকে জেলার বিভিন্ন মসজিদে উচ্চারিত হয় আজান। রাত ১২ টার পর শুরু হয় মিছিল। অনেক মন্দিরেও উচ্চারিত হয় উলুধ্বনি। সর্বত্র এক বিভীষিকাময় অবস্থা।

তবে এব্যাপারে উলামায়ে কেরামগণের সুস্পষ্ট একটা ভাষা প্রচার হলে গুজব থেকে বাচতে পারব আমরা। যদিও কিছু কিছু আলেম তাৎক্ষণিক এর ভিত্তি বা কারণ নিয়ে সংক্ষিপ্ত সর্তকবাণী স্যোসাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। এরপরও কেউ এ দিকে কর্নপাত না করে উন্মাদনায় মেতে উঠেন।