Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  চুনারুঘাটে ত্রাণের জন্য বিক্ষোভ করছে চা শ্রমিকরা #  ছুটি বাড়ছে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত #  ইতালিতে করোনায় আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু #  ইতালিতে ২৪ ঘণ্টায় আরো ৮১২ জনের মৃত্যু #  শায়েস্তাগঞ্জে ৪০০ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ #  করোনা শনাক্তে ওসমানী হাসপাতালে আসলো পিসিআর মেশিন #  সুনামগঞ্জে সর্দি-কাশি-জ্বর নিয়ে নারীর মৃত্যু #  বাহুবলে খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করলেন এএসপি পারভেজ আলম #  নবীগঞ্জে অস্ত্রসহ তিন ডাকাত গ্রেফতার #  বাহুবলে অনাবৃষ্টির কারণে বোরো ধান নিয়ে অনিশ্চিত কৃষকরা #  সিলেটে হোম কোয়ারেন্টিন না মানায় প্রবাসীকে জরিমানা #  নবীগঞ্জে ফেনসিডিলসহ যুবক আটক #  নবীগঞ্জে করোনা ভাইসরাস রোধে সেনা টহল অব্যহত #  দেশে নতুন আক্রান্ত ১ জন, সুস্থ ১৯ #  শায়েস্তাগঞ্জে দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ সেনাবাহিনীর

হবিগঞ্জে হজ্জ নিয়ে কটূক্তিকারী কথিত পীর কারাগারে

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ:
পবিত্র কাবা, মদিনা শরিফ, হজ ও ওমরাহ সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করায় কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার উমানাথপুরের গুলে মদিনা দরবারের কথিত পীর আবুল বাশার আল কাদরীর জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হাবিবুল্লাহ আজ রোববার দুপুরে এই আদেশ দেন।

কথিত এই পীরকে অবিলম্বে গ্রেপ্তারসহ দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে ক্ষুব্ধ বিভিন্ন ইসলামি সংগঠন বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনসহ নানান কর্মসূচি পালন করে আসছিল।

ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের অভিযোগ এনে কিশোরগঞ্জ জজ আদালতের আইনজীবী মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম মামুন বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আবুল বাশার আল কাদরীকে একমাত্র আসামি করে গত ১২ জানুয়ারি ভৈরব থানায় একটি মামলা করেন।

বাদীপক্ষে অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান ও অ্যাডভোকেট রহম আলীসহ বিপুল আইনজীবী এবং আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট মিয়া মো. ফেরদৌস মামলাটি পরিচালনা করেন।

পরে ঢাকা হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ গত ১৮ জানুয়ারি চার সপ্তাহের জামিন মঞ্জুর করে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন।

মামলার আসামি উমানাথপুরের গুলে মদিনা দরবারের কথিত পীর আবুল বাশার আল কাদরী হবিগঞ্জ শহরের ইনাতাবাদের এক মাহফিলে পবিত্র কাবা, মদিনা শরিফ, হজ ও ওমরাহকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করে বক্তব্য দেন। সেইসঙ্গে নিজের দরবার শরিফকে হেরেম ঘোষণা দেওয়ার কথা বলেন। কথিত পীরের এসব বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মনে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।