Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  বাংলাদেশ দলে সিলেটের নাঈম #  সিলেট সিক্সার্সের সাথে বৈঠক আজ #  হবিগঞ্জে জ্যোতির্বিজ্ঞান বিষয়ক কর্মশালা সম্পন্ন #  পালিয়ে গিয়ে শেষ রক্ষা হল না প্রেমিক-প্রেমিকার #  মাধবপুরে গাছ থেকে পড়ে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু #  চুনারুঘাটে বনগাঁও গ্রামের রাস্তার বেহাল দশা: সংস্কার দাবী #  পুওর কেয়ার কুইক রেসপন্স টিমের সভা অনুষ্ঠিত #  আজমিরীগঞ্জে হাওর থেকে নারীর মরদেহ উদ্ধার #  মাধবপুরে চা শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা #  হবিগঞ্জে মানবিক, উন্নয়ন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা শীর্ষক সভা #  শায়েস্তাগঞ্জে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে জি কে গউছের মতবিনিময় #  চুনারুঘাট পৌর শহরে উচ্ছেদ অভিযানে যানজটমুক্ত সড়ক #  শায়েস্তাগঞ্জে আ’লীগের বর্ধিত সভায় এমপি আবু জাহির #  বাহুবলে প্রাইভেটকার চাপায় পুলিশ সদস্যের মৃত্যু #  বিয়ানীবাজারে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় মামলা

হবিগঞ্জে সরকারি চাল জব্দের ঘটনায় ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জে সরকারি চাউল পাচারের ঘটনায় জড়িত ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

সরকারি চাউল আটকের ঘটনায় ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান খানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।

শুক্রবার এ বিষয়ে সুপারিশ করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে কমিটি। তদন্তে আটক ২ হাজার বস্তার মাঝে ৮৮০ বস্তা চাউল ভিজিএফ এর বলে প্রমাণিত হয়েছে।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মর্জিনা আক্তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ভিজিএফ এর চাউল পরিবহনের জন্য হবিগঞ্জের খাদ্য গোদাম রোডের সুরমা অটোরাইছ এন্ড ফ্লাওয়ার মিলের মালিক ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমানকে ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়। ভিজিএফ এর উক্ত ৮৮০ বস্তা চাউল তিনি শায়েস্তাগঞ্জ খাদ্য গোদাম থেকে মাধবপুরে পৌছে দেয়ার কথা। কিন্তু তিনি তা মাধবপুরে না নিয়ে হবিগঞ্জ শহরে নিজের গোদামে নিয়ে আসেন।

সেখানে ট্রাক থেকে নামানোর সময় এসব চাউল আটক করা হয়। অন্যায়ভাবে এসব চাউল নিয়ে যাওয়ার জন্য তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সুপারিশ করা হয়েছে। আর অবশিষ্ট ১ হাজার ২০০বস্তা সরকারি চাউল তিনি বৈধভাবে ক্রয় করেছেন। সেগুলোর কাগজপত্র তার কাছে রয়েছে।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মর্জিনা আক্তার জানান, চাউলগুলো পরিবহনের জন্য তাকে যে ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়েছে সে বিষয়ে তার কাগজপত্র রয়েছে। কিন্তু চাউল মাধবপুরে না নিয়ে তিনি হবিগঞ্জে নিজের গোদামে নিয়েছেন। এটি অন্যায়। তাই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। এ চাউলগুলো দরিদ্রদের মাঝে বিতরণের জন্য দেয়া হয়েছিল।

এর আগে ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান খান নিজেকে রক্ষার জন্য তদন্ত কমিটির কাছে ঠিকাদার হিসেবে নিয়োগের কাগজপত্র হাজির করেন।

এ সময় তিনি জানান, গাড়ী চাকায় সমস্যা হওয়ায় গাড়ী মেরামতের জন্য চাউলগুলো হবিগঞ্জে নিয়ে এসেছেন।

উল্লেখ্য, গত বুধবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহরের খাদ্য গোদাম রোড (গরুর বাজার) এলাকার ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান খানের মালিখানাধীন সুরমা অটোরাইছ এন্ড ফ্লাওয়ার মিলের গোদামে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াছিন আরাফাত রানা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিছুর রহমান। এ সময় তার গোদামের ভিতরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ উপস্থিত সাংবাদিকরা দেখতে পান সরকারী বস্তার চাউলগুলো খোলে অন্য বস্তায় ঢুকিয়ে প্যাকেট করা হচ্ছে। এ সময় গোদাম থেকে এক ট্রাক চাউলসহ প্রায় ২ হাজার বস্তা সরকারি চাউল জব্দ করা হয়।

জব্দকৃত বস্তায় ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’ স্লোগান লেখা ছিল। এসব চাউল বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে দরিদ্রদের মধ্যে বিতরণ করার কথা। ঈদুল আযহা উপলক্ষে হতদরিদ্রদের মধ্যে মাথা পিছু ১৫ কেজি ও ভিজিডি চাউল মাথা পিছু ৩০ কেজি করে বিতরণের কথা রয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াছিন আরাফাত রানা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গরুর বাজার এলাকার ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান খানের সুরমা অটোরাইছ এন্ড ফ্লাওয়ার মিলের গোদামে অভিযান চালানো হয়।

এ সময় মিলের গোদামে রাখা সরকারি ১ হাজার ৫০ বস্তা, একটি ট্রাকে ভর্তি ৮৬০ বস্তা এবং বিপুল পরিমান খোলা চাউল জব্দ করা হয়। খাদ্য অধিদপ্তরের সীল সম্বলিত প্রতিটি বস্তাই ৩০ কেজি ওজনের। এগুলো দরিদ্রদের মাঝে বিতরণের ভিজিডি এবং ভিজিএফ এর চাউল। এর সাথে যারাই জড়িত তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার নয়নের বরাত দিয়ে জানান, চাউলগুলো বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের কাছ থেকে কেনা হয়েছে বলে তারা জানিয়েছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। কমিটি ২৪ ঘটনার ভিতরে প্রতিবেদন দাখিল করে।

editor masum